আজ ৬ ডিসেম্বর শ্রীমঙ্গল মুক্ত দিবস ॥ স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও অরক্ষিত অনেক বধ্যভুমি

ডিসেম্বর ৬, ২০১৮, ৬:২৮ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ২৬ বার পঠিত

বিকুল চক্রবর্তী॥ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলাটি পাক হানাদার বাহিনীর হাত থেকে মুক্ত হয়েছিল। তবে এর আগে হানাদার বাহিনীর সাথে লড়াই করে নিহত হয়েছিলেন বেশ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিকামী মানুষ।

১৯৭১সালের ৩০ এপ্রিলের পর থেকে পাকিস্তান হানাদার বাহিনী ৫ ডিসেম্ব^র পর্যন্ত শ্রীমঙ্গলের মুক্তিযোদ্ধা সমীর সোম, মুকিত লস্কর, শহীদ আনিস মিয়া, মইনউদ্দিনসহ হত্যা করেছিল শতশত মুক্তিযোদ্ধা ও অসংখ্য নারী-পুরুষদের। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণে সূচিত অসহযোগ আন্দোলন শ্রীমঙ্গলে তীব্র রূপ নেয়। অফিস-আদালতসহ শ্রীমঙ্গলের চা শিল্পে সৃষ্টি হয় অচলাবস্থা। ভাড়াউড়া চা বাগান বধ্যভূমি, সাধুবাবার থলী, সিন্দুরখান জয়বাংলা বধ্যভুমি ও সবুজ বাগ বধ্যভুমিতে শত শত মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিকামী মানুষকে হত্যা করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধের এক পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধাদের মরনপন লড়াই ও ভারতের সীমান্ত থেকে মুক্তি বাহিনী ক্রমশ ক্যাম্প অভিমুখে এগিয়ে আসার খবরে পাক বাহিনী ভীত হয়ে পড়ে। অবস্থার বেগতিক দেখে ৬ ডিসেন্বর ভোরে তারা পালিয়ে মৌলভীবাজারে আশ্রয় নেয় এবং মুক্ত হয় শ্রীমঙ্গল শহর। উড়ানো হয় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”