ইউপি চেয়ারম্যান থেকে মন্ত্রী হলেন বড়লেখার শাহাব উদ্দিন

জানুয়ারী ৭, ২০১৯, ৬:৪৭ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ১৬৮ বার পঠিত

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনের চার বারের সংসদ সদস্য মো. শাহাব উদ্দিন বন ও পরিবেশ মন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন। মন্ত্রীপরিষদ থেকে মুঠোফোনে মো. শাহাব উদ্দিনকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ৭ জানুয়ারী সোমবার বঙ্গভবনে তিনি শপথগ্রহণ করবেন। রোববার বেলা দুইটায় মুঠোফোনে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মো. শাহাব উদ্দিন এমপি। এদিকে শাহাব উদ্দিন বন ও পরিবেশ মন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন-এমন খবরে তার নির্বাচনী এলাকা বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার মানুষের মধ্যে বইছে আনন্দের বন্যা। বিকেলে বড়লেখা উপজেলা আ’লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পৌরশহরে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে।মো. শাহাব উদ্দিন এমপি দশম জাতীয় সংসদের হুইপের দায়িত্ব পালন করে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেন। এ কারণে তৃণমূলের নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের মাঝে তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। হুইপ শাহাব উদ্দিন বড়লেখা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।২০০৮ সালের নবম ও ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত হয়ে তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তৃণমূল পর্যায় থেকে দাবি ওঠে তাকে মন্ত্রী করার। এলাকার মানুষের প্রতি সম্মান দেখিয়ে প্রতিমন্ত্রীর পদমর্যাদায় শাহাব উদ্দিনকে হুইপ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবার নির্বাচনের প্রচারণায় পাশ করলেই পূর্ণ মন্ত্রীর বিষয়টি গুরুত্বের সাথে স্থান পায়।মো: শাহাব উদ্দিন এমপি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে জয়ের যাত্রা শুরু করেন। এ ধারাবাহিতকায় সংসদ সদস্য থেকে হুইপ হয়ে সে যাত্রা পৌছেছে এখন মন্ত্রীত্বে। তিনি সোমবার পুর্ণমন্ত্রীর দ্বায়িত্ব নিচ্ছেন। মৌলভীবাজার ১ আসনের সংসদ সদস্য শাহাব উদ্দিন ১৯৮৪ সালে প্রথম মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন। সে নির্বাচনের পর রাজনীতির মাঠে তাকে আর পেছন ফিরে থাকাতে হয়নি। একটানা ৩ বার ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৯৬ সালের প্রথম বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এবাদুর রহমান চৌধুরীকে পরাজিয় করে এমপি নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের নির্বাচনে হেরে গেলেও ২০০৮ এ আবারো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সে ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদে এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। বিজ্ঞ রাজনীতিক ও জনপ্রতিনিধি, সৎ এবং সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের সিঁড়ি বেয়ে ওপরে ওঠা  মো. শাহাব উদ্দিন মন্ত্রী হচ্ছেন একাদশ জাতীয় সংসদে।  তিনি  বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হচ্ছেন। দশম সংসদের সরকার দলীয় হুইপের দায়িত্ব পালন করেন। তার মন্ত্রী হওয়ার খবরে এলাকায় বইছে আনন্দের বন্যা।  শাহাব উদ্দিনের মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার খবরে বড়লেখা-জুড়ী উপজেলার ১ পৌরসভাসহ ১৬টি ইউনিয়নের দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ জনগণের মাঝে দেখা দিয়েছে আনন্দ, উচ্ছ্বাস আর উল্লাস। রোববার দুপুরে শাহাব উদ্দিন পূর্ণ মন্ত্রী হচ্ছেন এই খবরটি তার নির্বাচনী এলাকায় প্রচার হয়। প্রথমবারের মত জেলার এই আসনে পূর্ণমন্ত্রী পেয়ে উচ্ছ্বসিত নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ। বড়লেখা উপজেলঅ সদরের দক্ষিণবাজার এলাকায় নেতা-কর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেন। এরপর পৌর শহরে আনন্দ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহর প্রদক্ষিণ করে। এছাড়া বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মিষ্টি বিতরণ ও মিছিল করার খবর পাওয়া গেছে।

মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি, পৌর মেয়র ফজলুর রহমানসহ তৃণমূলের নেতাকর্মীরা অভিনন্দ জানিয়েছেন শাহাব উদ্দিনকে।উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার উদ্দিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর মেয়র আবুল ইমাম কামরান চৌধুরী বলেন, ‘শাহাব উদ্দিনকে মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলাবাসীর পক্ষ থেকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’ এক প্রতিক্রিয়ায় শাহাব উদ্দিন এমপি জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘এ পাওয়া আমার একার নয়, বড়লেখা-জুড়ীবাসী তথা মৌলভীবাজার বাসীর। তিনি তার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।’ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসন থেকে আওয়ামী লীগ প্রাথী মো. শাহাব উদ্দিন নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৪৩ হাজার ৬৭৬ ভোট পেয়ে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি প্রাথী নাসির উদ্দিন আহমেদ মিঠু ধানের শীষ প্রতীকে পান ৬৫ হাজার ৮১৪ ভোট।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”