ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে কামারপাড়া

আগস্ট ১৯, ২০১৮, ৮:০৯ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ১৯১ বার পঠিত

আশরাফ আলী॥ পবিত্র ঈদুল আজহার আর মাত্র কয়েক দিন বাকী। মৌলভীবাজারের কামারপাড়াতে নাওয়া খাওয়া ভুলে গিয়ে বিরতীহিন ভাবে কাজ করছেন কামাররা। কামারদের টুং টাং শব্দে জমে উঠেছে কামারপাড়া।

বছরের অধিকাংশ অলস সময় পার করেন কামাররা। তাই ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে কামারপাড়া। দা, ছুরি, বটি ও হাসুয়া তৈরীর কামাররা ব্যস্ত  সময় পার করছেন। কাক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত দা, ছুরি, বটিসহ লৌহজাত জিনিস তৈরীর কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামাররা।

সারা বছর অনেকটা অলস সময় পার করে একটি মাত্র দিনের আশায় বসে থাকতে হত এই শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের। তাই কামাররা কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে তারা সারা বছর চলার মত অর্থ উপার্জনের আশা করেন।

মৌলভীবাজার শহরের পুরাতন হাসপাতাল রোডে দা, ছুরি, বটি তৈরীর কারিগর প্রেমাানন্দ দে জানালেন, সারা বছর অনেকটা আমাদের অলস সময় পার করতে হয়। এতে সংসার চালানো বড় কষ্ট হয়। তার পরেও এ পেশা ছাড়তে পারিনি। শুধু মাত্র একটি দিনের আশায় বুক বেধে কোন রকমে দিন পার করি। বুকে আশা বেধে আছি এ বছর কোরবানীর ঈদে দা, ছুরি, বটিসহ লৌহ জাত পণ্য বিক্রি করে সারা বছর চলার মত উপার্জন করা যাবে।

স্বপন দেব নামের আরেকজন কামার জানান, গত বছর এ বছরের চেয়ে বেশী কাজ ছিল। অবশ্য গত বছরের তুলনায় এবছর লৌহজাত পণ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে দা, বটি সহ অন্যান্য জিনিষের দাম বেশী।

একই দৃশ্য দেখা যায় শহরের সানিতি আয়রণ ষ্টোর, রিতা আয়রণ ষ্টোর সহ কামারপাঁড়ার অন্যান্য দোকানগুলোতে। দা, ছুরি ,বটি, ও হাসুয়া সহ লোহা শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কামাররা এখন অনেকটা ব্যস্ত সময় কাঠাচ্ছেন। ফলে কিছুটা হলেও আশার সঞ্চার হয়েছে কামারপাড়াতে।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”