এক সপ্তাহ ধরে কমলগঞ্জে মাদ্রাসা ও স্কুলের দুই ছাত্র নিখোঁজ

ডিসেম্বর ৭, ২০১৭, ১১:৩৭ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৫৯ বার পঠিত

প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ॥ কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রাম থেকে এক সপ্তাহ ধরে দুই ছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ ছাত্রদের সন্ধান না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার ৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়।

 ২৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে ছাত্রদ্বয় মাদ্রাসা ও স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ২৯ নভেম্বর বিকাল ৩টায় শ্রীপুর গ্রামের কৃষক চেরাগ মিয়ার ছেলে মাধবপুর ইউনিয়নের নওয়াগাঁও তালিমুল কুরআন মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনির ছাত্র মো: হাবিবুর রহমান ওরপে তারেক (১১) মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফিরছিল। ছাত্র হাবিবুর রহমান আর বাড়ি ফিরেনি। একইভাবে শ্রীপুর গ্রামের ছমদু মিয়ার ছেলে শ্রীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র সাহিদ মিয়া (১০) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পর থেকে টানা এক সপ্তাহ আত্মীয় স্বজনদের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও নিখোঁজ ছাত্রদ্বয়ের সন্ধান পাওয়া যায়নি। অবশেষে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া ও স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করেন।

নিখোঁজ মাদ্রাসা মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল আকাশী রং-এর পাঞ্জাবি পায়জামা ও মাথায় সাদা টুপি ছিল। নিখোঁজ স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল নীল রং-এর স্কুল ড্রেস। দুজনই সিলেটী আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। দুজনের উচ্চতা যথাক্রমে ৩ ও ৪ ফুট। নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে অনেক খোঁজ করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি বলেই বৃহস্পতিবার কমলগঞ্জ থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো: নজরুল ইসলাম বলেন, দুই ছাত্র নিখোঁজের কথা শুনেছেন। থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। পুলিশ নিখোঁজ ছাত্রদের খুঁজতে তদন্ত শুরু করবে।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন