কুলাউড়া পৌরসভার ৫০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

জুন ২৮, ২০১৮, ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ১৩৩ বার পঠিত

মাহফুজ শাকিল॥ কুলাউড়া পৌরসভার ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য মোট ৫০ কোটি ৪ লক্ষ ৬৪ হাজার ১ শত ৭৯ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।

২৭ জুন বুধবার বেলা ১২টার দিকে পৌরসভা মিলনায়তনে কুলাউড়ার বিভিন্ন সামাাজিক, রাজনৈতিক, শিক্ষক, ব্যাংক ব্যবস্থাপক ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এই বাজেট পাঠ করেন পৌর সচিব শরদিন্দু রায়। ঘোষিত বাজেটে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৮৯ লক্ষ ৪৪ হাজার ১শত ৭৯ টাকা এবং রাজস্ব খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৪০ লক্ষ ৭৮ হাজার ৩শত ৮৬ টাকা। রাজস্ব উদ্বৃত্ত দেখানো হয়েছে ৪৮ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭শত ৯৩ টাকা। বাজেটে উন্নয়ন খাতে আয় ধরা হয়েছে ৪৬ কোটি ১৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা এবং ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৬ কোটি ১৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা।

কুলাউড়া পৌরসভার মেয়র শফি আলম ইউনুছ এর সভাপতিত্বে এবং পৌর কাউন্সিলর ইকবাল আহমদ শামীমের সঞ্চালনায় উন্মুক্ত বাজেটে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শামীম মুসা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মো. নুরুল হক, জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুল মানিক, দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক সিপার আহমদ, যুগান্তর প্রতিনিধি মোঃ আজিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুলাউড়া উপজেলা ইউনিটের সভাপতি মোক্তাদির হোসেন, সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক সঞ্জয় কুমার দেব, সাউথ ইস্ট ব্যংকের ব্যবস্থাপক আব্দুর রব, প্রাইম ব্যাংকের সহকারী ব্যবস্থাপক মিসবাহুর রহমান চৌধুরী, ইউসিবি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আবুল ফাত্তাহ চৌধুরী।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পৌর প্যানেল মেয়র জয়নাল আবেদীন বাচ্চু, মো. হারুনুর রশীদ, লোকমান আলী, সামছুল ইসলাম সমছু, রাসেল আহমদ চৌধুরী, সংরক্ষিত কাউন্সিলার (মহিলা) রাবেয়া বেগম, আনোয়ারা বেগম, দিলারা বেগম এবং পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণসহ শ্রেণীপেশার নেতৃবৃন্দ। সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব কুলাউড়ার সহ-সভাপতি ময়নুল হক পবন, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুলাউড়া উপজেলা ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক  মোঃ নাজমুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শরীফ আহমদ, নির্বাহী সদস্য শাকির আহমদ, মানব কন্ঠ প্রতিনিধি সেলিম আহমেদ, শুভ প্রতিদিন প্রতিনিধি আব্দুল আহাদ প্রমুখ।

বাজেট ঘোষণা শেষে পৌর মেয়র শফি আলম ইউনুছ বলেন, সততা এবং নিষ্ঠার সাথে পৌরসভা পরিচালনা করছি। দল, মত নির্বিশেষে সকলের জন্য পৌরসভার দ্বার খোলা। আমি দ্বায়িত্ব পাওয়ার পর এই পৌরসভাকে এ গ্রেডে উন্নীত করেছি। পৌরসভার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডে বরাদ্দের জন্য প্রায় সময় ঢাকায় বিভিন্ন দপ্তরে ধরণা দিচ্ছি। কুলাউড়া পৌরসভাকে দেশের অন্যান্য পৌরসভার জন্য একটি দৃষ্টান্ত হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে আমি নিরলসভাবে কাজ করে যাব। আমার এই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে কুলাউড়ার সর্বস্তরের শ্রেনীপেশার মানুষের সহযোগীতা একান্ত প্রয়োজন। উল্লেখ্য, বছর এ গ্রেডে উন্নীত হয় কুলাউড়া পৌরসভা।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”