জুড়ীতে জেল ফেরৎ ইয়াবা ব্যবসায়ীর নেতৃত্বে কলেজ ছাত্রকে নির্যাতন

মার্চ ২৬, ২০১৯, ১০:৪৫ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৫৩ বার পঠিত

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ মৌলভীবাজারের জুড়ী টিএন খানম একাডেমি ডিগ্রী কলেজের ইন্টারমিডিয়েট (বিজ্ঞান) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র কাওছার আহমদকে ২৫ মার্চ সোমবার রাতে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে জেল ফেরৎ ইয়াবা ব্যবসায়ী সুমনের নেতৃত্বে হত্যার উদ্দেশ্যে অমানষিক নির্যাতন চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানা গেছে, জুড়ী উপজেলার পূর্ব বেলাগাও গ্রামের মৃত ইব্রাহিম আলীর ছেলে ও জুড়ী টিএন খানম একাডেমি ডিগ্রী কলেজের এইচএসসি (বিজ্ঞান) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র কাওছার আহমদকে সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঐ দিন ইয়াবা মামলায় জেল থেকে জামিনে বেরিয়ে আসা পশ্চিম বেলাগাও গ্রামের তারা মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া মোবাইল ফোনে ডেকে নেয়। সরল বিশ্বাসে কাওছার বাড়ি থেকে বের হলে সমুন তাকে তার ভগ্নিপতি মামুন মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুন, সুমন, ইব্রাহিমসহ ৭-৮ ব্যক্তি হত্যার উদ্দেশ্যে কাওছারকে রড দিয়ে বেধড় পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। প্রায় দেড়ঘন্টা অমানষিক নির্যাতনের পর তাকে বেধে রাখা হয়। এসময় প্রতিবেশিরা টের পেয়ে কাওছারের স্বজনদের নিকট খবর পাঠায়। রাত ১২ টার দিকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়।

আহত কাওছারের বড়ভাই জহির উদ্দিন জানান, জুড়ী থানার একটি মাদক মামলায় সুমন মিয়া প্রায় ১ মাস হাজতবাস করে সোমবার জামিনে বেরিয়ে আসে। আমার ভাইয়ের সাথে তার পূর্ব পরিচয় ছিল। রাতে ফোনে তাকে ডেকে মামুনের বাড়িতে নিয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী সুমন, মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মামুন, আবুল কাশেমের ছেলে ইব্রাহিম, রাজ্জাক মিয়ার ছেলে বিল¬ালসহ ৭-৮ জন হত্যার চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে আমরা রক্তাক্ত ও বাধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। তার মাথা, পা-সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম হয়েছে। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জুড়ী থানার ওসি মোহাম্মদ জাহাঙ্গির হোসেন সরদার মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জানান, কলেজছাত্রকে নির্যাতনের ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”