নারী

মার্চ ৮, ২০১৯, ৯:০৮ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৭০ বার পঠিত

রোকসানা আক্তার

মনের গহীনে তোলপাড় করা ঝড়ে

কত নারী প্রতিদিন নীরবে কেঁদে মরে।

পরিবারের স্বজনদের সুখের কথা ভেবে

সব দুঃখ, কষ্ট, যন্ত্রণা সহ্য করছে নীরবে।

সমাজ-সংসার নিচ্ছে অবলা ভেবে যাকে-

‘ওদের ভাল হোক’- এই চিন্তা সর্বদাই তাঁর থাকে।

ভাবেনা অপূর্ণ থাকা অনেক ইচ্ছান কথা

অভিনয়ে পটু হয়ে লুয়াক সকল ব্যথা।

সকলের স্বাদের খাবার রান্নায় সদা ব্যস্ত,

এই কাজে সারাজীবন নিজেকে করে অভ্যস্ত।

কে কী খাবে, কি পরবে, সব চিন্তা যেন তাঁর

নিজের জন্য এক মিনিটও সময় নেই ভাবনার।

শৈশবেই ঢুকানো হয় মাথার ভিতর এমন

“তুমি যে নারী, চলতে পারনা ইচ্ছা যেমন তেমন।

কত বিপদ অপেক্ষা করে আছে তোমার জন্য

ঘরের কাজ করা ছাড়া আর উপায় নাই অন্য।”

এসব কথা মনে রেখে নারী বলি দেন কত প্রতিভা

অপরাধ যেন হয়ে যাবে কিছু করতে যাওয়া ভাবা।

পাল্টেছে সমাজ, পাল্টেছে সমাজ ও যুগ

তবুও নারী যেন মাধ্যম, প্রকাশের সবার ক্ষোভ।

অনেকের প্রশ্ন তোমায়, ‘এমন কর কাজ কী?

যেই যাই বলুক, চিন্তা তারÑ কেমনে খুশি রাখি?

এভাবেই যাচ্ছে অধিকাংশ নারীর দিন, বছর

জীবণ থাকতে পান না কোথাও কোন অবসর।

কারোও মা বোন, কারোও স্ত্রী বা মেয়ে এইসব নারী-

সবাই মিলেই তাদের সকল কষ্ট দূর করতে পারি।

রোকসানা আক্তার,

সহকারী শিক্ষক, দি ফøাওয়ার্স কে.জি এন্ড হাই স্কুল, মৌলভীবাজার।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”