প্রতিবন্ধিতা উত্তরণ সম্মাননা পেল বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল

ডিসেম্বর ৬, ২০১৮, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৫৬ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ মৌলভীবাজার জাতীয় অন্ধকল্যাণ সমিতি (বিএনএসবি) চক্ষু হাসপাতাল প্রতিবন্ধী মানুষের উন্নয়নে সফল প্রতিষ্ঠান হিসেবে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ “প্রতিবন্ধিতা উত্তরণ সম্মাননা-২০১৮-এ ভূষিত হয়েছে
৩ ডিসেম্বর ২৭তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস এবং ২০তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন বিএনএসবি মৌলভীবাজারের অবৈতনিক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোসাহিদ আহমদ।
সমাজ হতে অন্ধত্ব দূরীকরণ এবং সমাজের দরিদ্র অসহায় সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে চিকিৎসাসেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে মৌলভীবাজার জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি (এমবিএনএসবি) যা মৌলভীবাজার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল নামে পরিচিত। ১৯৮৬ সালে মৌলভীবাজার শহর থেকে ২ কি.মি. দূরে শমসেরনগর রোডস্থ মাতারকাপন নামক স্থানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত বন্দোবস্তকৃত জায়গার উপর স্থাপিত ভবনে ২৫ বেডের বিশেষায়িত হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে মৌলভীবাজার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয়।
বর্তমানে ৭ টি সাধারণ কেবিন, ১১টি এসি কেবিন, ৩১টি সাধারণ, শিশুদের জন্য একটি শিশু ওয়ার্ড এবং ক্যাম্পে আগত রোগীদের জন্য একটি ক্যাম্প ওয়ার্ড নিয়ে হাসপাতালের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। সিলেট বিভাগের ১ কোটি ২০ লক্ষেরও অধিক মানুষের চোখের চিকিৎসার জন্য একমাত্র সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ছাড়া অন্য কোন বিশেষায়িত হাসপাতাল না থাকায় এই অঞ্চলের বৃহৎ জনগোষ্ঠীকে সব সময় চিকিৎসার জন্য ঢাকামুখী হতে হত। এই অবস্থা হতে উত্তোরণ এবং বৃহৎ জনগোষ্টীকে অন্ধত্বের অভিশাপ হতে রক্ষা করার লক্ষ্যে মৌলভীবাজারে কিছু প্রতিশ্রুতিবদ্ধ মানবপ্রেমী ব্যাক্তিবর্গের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় মৌলভীবাজার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা লাভ করে। এই হাসপাতাল হতে সিলেট বিভাগের সব কটি জেলা এবং পার্শ্ববর্তী জেলাসমূহের জনগণ চিকিৎসা গ্রহণ করে আসছেন।
মৌলভীবাজার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল পরিচালিত হয় ১৭ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটির দিক নির্দেশনায়। জেলার জেলা প্রশাসক পদাধীকার বলে ওই কমিটির সভাপতি। চোখের রোগীদের একটি বিরাট অংশ শিশু। এই শিশুর কথা বিবেচনায় এনে ২০০৪ সালে অরবিস ইন্টারন্যাশনাল এবং বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয় সিলেট বিভাগের একমাত্র বিশেষায়িত শিশু চক্ষু বিভাগ।
শুরু থেকে এ পর্যন্ত মৌলভীবাজার বি এন এস বি চক্ষু হাসপাতালে ১৪,৫৭,৪১৭ জন রোগীকে বহির্বিভাগে চিকিৎসা, ৮৮,৭৫৮ জন রোগীকে অপারেশন করা হয়েছে। বিনামূল্যে ১৬৬০ টি চক্ষু শিবিরের মাধ্যমে ৭৩৪,৬২১ জন রোগীকে চিকিৎসা প্রদান এবং ৯৩,৬৬৬ জন রোগীর অপারেশন করা হয়েছে। ৯০১ টি স্কুল পরিদর্শনের মাধ্যমে ২,৮১,৭২৪ জন ছাত্র/ছাত্রীদেরকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ৪৯ টি পেডিয়াট্রিক ক্যাম্পের মাধ্যমে ২০,৬৬৮ জন শিশু রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”