(ভিডিওসহ) প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হলো দুর্গা উৎসব

অক্টোবর ১৯, ২০১৮, ৬:৪০ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৮৬ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ নাচ গান ও শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে মৌলভীবাজারে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহত দূর্গা উৎসব প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হল।

শুক্রবার বিকালে সাড়ে তিনটায় শহরের বিভিন্ন মন্ডপ থেকে মুর্তি নিয়ে এম সাইফুর রহমান সড়কের কালি বাড়ির সামনে জড়ো হন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। এখান দেবী দুর্গা ও অন্যান্য দেব-দেবীর নিয়ে শোভাযাত্রা শহরে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহরের চাঁদনীঘাট এলাকায় মনুনদীতে বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হয়।

১৫ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে হিন্দু সম্প্রদায়ের পাঁচ দিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এরপর মহাসপ্তমী, মহাষ্টমী ও মহানবমীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজার হাজার নারী-পুরুষ ধর্মীয় নানা অনুষ্ঠান পালন করেন। বিজয়া দশমীর দিনে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে এ আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়।

জেলায় ৯৯৬ টি পূজাম-পে পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর দূর্গাদেবী ঘোড়ায় চড়ে আসেন আর বিদায় নেন পালকিতে করে।

উল্লেখ্য শোভাযাত্রার প্রস্তুতির সময় শহরের চৌমুহনায় প্রতিমাবাহী ২টি গাড়ীতে হামলা করে এক যুবক। একটি গাড়ির সামনের গ্লাস দা দিয়ে আঘাত করলে ভেঙে যায়। তাৎক্ষণিক স্থানীরা তাকে ধরে গনধোলাই দিয়ে কর্তব্যরত পুলিশের কাছে সোর্পোদ করে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তাার করে থানায় নিয়ে যায়। আটক যুবকের নাম সাইদ আহমদ (২৮)। মৌলভীবাজার সদর উপজেলার মোস্তফাপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের পুত্র। স্থানীয়রা জানান মানসিক ভারসাম্যহীন থাকায় এমন কাজটি করতে পেড়েছে। সে শহরের চৌমুহনা এলালাকার একটি চশমার দোকানের কর্মচারী। পুলিশ তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

ঘটনার পর পর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, পৌর মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান ঘটনা স্থল চৌমুহনায় পৌছান ও হিন্দু ধর্মালম্বীদের কথা বলেন এবং এ বিষয়ে আস্বস্থ করেন। পরে জেলা প্রশাসক মোঃ তোফায়েল ইসলামও ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”