বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আলেমে দ্বীন মাওলানা আব্দুল হাই খান আর নেই

মার্চ ৩, ২০১৯, ৯:৫৬ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ১৫০ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবীদ,আলেমে দ্বীন,সমাজ সেবক ও সংগঠক যুক্তরাজ্য প্রবাসী মাওলানা আব্দুল হাই খান (৫০) ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাহী রাজিউন।
যুক্তরাজ্যের বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা মাওলানা আব্দুল হাই খান মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের আতুয়া গ্রামের প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন মরহুম মাওলানা খলিলুর রহমান এর পুত্র। ২ ভাই ও ৩ বোনের মধ্যে মাওলানা আব্দুল হাই ছিলেন ৪র্থ। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ মেয়ে ও ১ ছেলে। ২ বোন ১ ভাই, ভাগ্না,ভাগ্নি আত্মীয় স্বজনসহ অসংখ্য গুণাগ্রাহী রেখে গেছেন।
তিনি গেল কয়েক মাস থেকে দূরারোগ্য ব্রেইন ক্যান্সারে ভোগছিলেন। শুক্রবার ( ০১ মার্চ) লন্ডস্থ টাস্টফোর্টের বাসায় ইন্তেকাল করেন। শুক্রবারে তাঁর জন্ম শুক্রবারেই মৃত্যু হয় তাঁর। ওই দিন বাদ জুম্মা ইষ্ট লন্ডন জামে মসজিদে তাঁর নামাজে জানাযা শেষে পূর্ব লন্ডনের সুপরিচিত মুসলিম গোরস্থান “গার্ডেনস অব পিস” এ চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়। মাওলানা আব্দুল হাই খান একাধারে একজন সুপরিচিত আলেম, ভালো শিক্ষক ও বক্তা, সমাজ সেবক, কমিউনিটি নেতা ও সংগঠক ছিলেন। সদাহাস্যজ্জ্বল, স্পষ্টবাদী, দৃঢ়চেতা ও অন্যায়ের প্রতিবাদী হিসেবে সমাদৃত ছিলেন দেশ ও প্রবাসের সর্বমহলে।
বাংলাদেশী মুসলিমস ইউকে নামে আলেম-সমাজের একটি বড় সংগঠনের গুরুত্বপুর্ণ দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এ আই টি এর জেনারেল সেক্রেটারী, শাহবাজপুর ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। লন্ডনস্থ সাপ্তাহিক দেশ পত্রিকাও কলাম লিখতেন। ইকরা টেলিভিশনসহ লন্ডনের কমিউনিটি টেলিভিশনগুলোতে ইসলামী আলোচক হিসেবে তাঁর সুপরিচিতি ও সুখ্যাতি ছিল।
বাংলাদেশে থাকাকালীন সময়ে কর্মজীবনে তিনি বিভিন্ন স্কুলে সুনামের সাথে শিক্ষকতা করেছেন। শাহবাজপুরের ঐহিত্যবাহী বিদ্যাপিঠ শাহবাজপুর দ্বি-পাক্ষিক হাইস্কুল ও বিয়ানীবাজার দক্ষিণ মুড়িয়া মাধ্যমিক স্কুলেও শিক্ষকতা করেছেন। লন্ডনে বিভিন্ন মসজিদে সুনামের সাথে খতিবের দ্বায়িত্ব পালনের পাশাপাশি লন্ডনে প্রথম ইভনিং মক্তব চালু করেন। ওই ইভিনিং মক্তবের নাম দেন “কুরতুবা ইন্সটিটিউট”। খুব কম সময়ের মধ্যেই এটি একটি সফল প্রতিষ্ঠানে রূপ নেয়।
পূর্ব লন্ডনে একাধিক শাখা চালু করেন কুরতুবা ইন্সটিটিউট-এর। তাঁর মৃত্যুতে লন্ডনস্থ বিভিন্ন কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও নিজ উপজেলা বড়লেখাসহ জেলার জনপ্রতিনিধি,রাজনীতিবীদ, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, আইনজীবী, চিকিৎসক, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ নানা শ্রেণী ও পেশার মানুষ গভীর শোক প্রকাশ করে তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”