বড়লেখায় রেলওয়ের ভুমি থেকে কেটে নেয়া গাছ জব্দ

নভেম্বর ২৯, ২০১৮, ৮:২০ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৬০ বার পঠিত

বড়লেখা প্রতিনিধি॥ বড়লেখার গাংকুল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন রেলওয়ের ভুমি থেকে অবৈধভাবে কেটে নেয়া তিনটি গাছের অংশবিশেষ বৃহস্পতিবার বিকেলে জব্দ করেছে কুলাউড়া রেলওয়ে পুলিশ (জি.আর.পি)। অভিযোগ উঠেছে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক উত্তর গাংকুল গ্রামের আশিক হোসেনের নিকট গাছগুলো ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। তবে স্কুলের সভাপতি সায়দুর রহমান সাইদুল ও প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম গাছ বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউপির গাংকুল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেললাইনের ভুমিতে পুরনো দুইটি রেইনট্টি ও একটি মেহেগুনি গাছ ছিল। বুধবার দুপুরে গাছগুলো কেটে নেওয়ার গোপন অভিযোগে কুলাউড়া রেলওয়ে পুলিশের (জি.আর.পি) সেকেন্ড অফিসার সায়েম চৌধুরীর নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার একদল জি.আর.পি পুলিশ অভিযান চালিয়ে উত্তর গাংকুল গ্রামের আসিক হোসেনের বাড়ি থেকে কেটে নেওয়া গাছগুলোর কিছু টুকরো উদ্ধারের পর জব্দ করেন। আসিক হোসেনের বাবা আছকর আলী জানান, তার ছেলে স্কুল কমিটির সভাপতি সায়দুর রহমান সাইদুল ও প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিমের নিকট থেকে ১০ হাজার টাকায় গাছগুলো ক্রয় করেছে। গাছগুলোর স্কুলের বলেই তারা বিক্রি করেন। এগুলো রেলওয়ের জানলে তার ছেলে অবশ্যই কিনত না।

এব্যাপারে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সায়দুর রহমান সাইদুল ও প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম গাছ বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, রেলওয়ের ভুমির গাছ তারা বিক্রি করতে যাবেন কেন। শুনেছেন গাছগুলো চুরি হয়েছে। তবে গাছগুলো কারা কেটে নিয়েছে তা জানেন না।

কুলাউড়া রেলওয়ে (জি.আর.পি) থানার সেকেন্ড অফিসার সায়েম চৌধুরী জানান, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীর দেয়া সুত্র ধরে উত্তর গাংকুলের আসিক হোসেনের বাড়িতে কেটে নেওয়া গাছের অংশগুলি  পেয়েছেন। পরে তা জব্দ করেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক মামলা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”