ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু : চিকিৎসক ও  হাসপাতাল মালিকের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

ডিসেম্বর ৬, ২০১৭, ৮:২১ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৭৮৭ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ নুরজাহান প্রাইভেট হাসপাতালে ভূল চিকিৎসা ও কর্তব্যে অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর কারণে চিকিৎসক ও হাসপাতাল মালিকের বিরুদ্ধে

দ্রুত আইনী ব্যবস্থা নেয়ার দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে সচেতন ছাত্র  ও যুব সমাজ।

৬ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় মৌলভীবাজার শহরের চৌমুহনা চত্বরে ঘন্টা ব্যাপী এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে দুই শতাধিক ছাত্র-যুব ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধন শেষে এক সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ভূল চিকিৎসা ও কর্তব্যে অবহেলায় পপি রানী পালের অকাল  মৃত্যু হয়। পপি রানীর মৃত্যুর পর তার পরিবারের পক্ষে ২৮ নভেম্বর মৌলভীবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্যাট ১নং আমল আদালতে মামলা হয়, মামলা নং ৬৬১/২০১৭।

মামলা হওয়ার পরও মামলার আসামী মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তার ফারজানা হক পর্ণা ও নুরজাহান প্রাইভেট হাসপাতালের মালিক তোয়াহিদুর রহমানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করছে না। অবিলম্বে আসামিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে শাস্তি প্রদানের তারা দাবি জানান। মানববন্ধনে নিহত পপি রানী পালের শিশুপুত্রকেও নিয়ে আসেন তার স্বজনরা।

উল্লেথ্য গত ২৫ নভেম্বর ৭টায় সন্তান সম্ভাবনা পপি রানী পালকে মৌলভীবাজার শহরের নুরজাহান প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অস্ত্রোপাচারের জন্য বলেন। রাত সাড়ে নয়টার দিকে ডাঃ ফারজানা হক পর্ণা অস্ত্রোপাচার করেন। অস্ত্রোপাচারের পর তার এক সন্তানের জন্ম হয়। এর পর রোগীর রক্তক্ষরণ শুরু হয়। রোগীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় নিজেদের দায় এরাতে অন্যত্র চিকিৎসার পরামর্শ দেয়া হয়। পরে রোগীর স্বজনরা সিলেটের পার্কভিউ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ২৬ নভেম্বর ভোররাতে পপি রানীর মৃত্যু হয়।

নিহত পপি রানী সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়নের মনোহর কোনা গ্রামের মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী সিন্টু পালের স্ত্রী।

 

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন