শ্রীমঙ্গলে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শুমারি শুরু

ফেব্রুয়ারী ৬, ২০১৯, ৮:৫০ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৮০ বার পঠিত

বিকুল চক্রবতী॥ ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সদস্যদের সনদ সহজীকরণের জন্য মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গলে এবার শুমারি শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে ৬ ফেব্রুয়ারী বুধবার অনুষ্ঠিত হয় দিনব্যাপী শুমারীকারীদের নিয়ে কর্মশালা। আর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হবে শুমারী। এর ফলে তাদের জাতিগত সনদ প্রাপ্তির বিড়ম্বনা যেমন থাকবেনা তেমনি সকল নৃ-গোষ্ঠীর একটি স্বচ্ছ তথ্যভান্ডার নিশ্চিত হবে।

মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্দ্যোগে আর শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় বুধবার দুপুরে উপজেলা হলরুমে এই প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আশরাফুর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি শাহিদুর ইসলাম ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায় ও রনেন্দ্র প্রসাদ বর্ধন জহর। এ সময় প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানবৃন্দ, ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টীর প্রতিনিধিবৃন্দ ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই শুমারি শেষ হলে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠির সঠিক সংখ্যা জানা যাবে, জাতিগত সনদ প্রাপ্তির বিড়ম্বনা থেকে রক্ষা পাবে তারা। এছাড়া আদিবাসীরা তাদের অধিকারের পূর্ণ সুবিধা ভোগ করতে পারবে। প্রশাসনের সার্ভিস সহজ হবে। এর আগে দেশে প্রথম বারের মতো মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শুমারি জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় পাইলট কর্মসূচি শেষে হয়েছে।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার জেলা প্রশসাক মো: তোফায়েল ইসলাম বলেন, মৌলভীবাজার জেলার ৭টি উপজেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন বিভিন্ন ক্ষুদ্র-নৃ জাতি গোষ্ঠী। প্রায়ই বিশেষ কৌটায় তাদের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানে ভর্তি হতে হলে  কিংবা অনান্য সুযোগ সু-বিধার ক্ষেত্রে তাদের সনদের প্রয়োজন পড়ে। তাই তিনি নিজ উদ্যোগে এ জেলার ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠীর শুমারী শুরু করেছেন। এর ফলে তাদের তথ্য পেতে সহজ হবে। তাদের সনদ প্রদানের পূর্বে যাচাই বাচাই-এর প্রয়োজন পড়ে যা কমে আসবে। তা ছাড়া অনলাইনে এন্টি করে দেয়ায় এ জেলার ক্ষুদ্র- নৃ জাতি গোষ্ঠী সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট ধারণা পাবেন সংশ্লিষ্টরা। তিনি বলেন, প্রাইভেট প্রকল্প হিসেবে কমলগঞ্জে তা সম্পন্ন করেছেন, এতে ওই উপজেলার সমস্ত তথ্য এখন ডাটা আকারে তাদের হাতে রয়েছে। অনুরুপ ভাবে পুরো জেলার তথ্য সংগ্রহ করা হবে। আর এর সফলতা পেলে  ভবিষতে সরকার প্রয়োজনে সারা দেশেও এই শুমারী করতে পারেন।

বিকেলে জেলা প্রশাসক ও অতিথিরা শ্রীমঙ্গল রামনগর মনিপুরি পাড়ায় মাঠ পর্যায়ে শুমারীর কাজও উদ্বোধন করেন। যা বৃহস্পতিবার থেকে এক যোগে পুরো উপজেলায় শুরু হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”