শ্রীমঙ্গলে বরুণা মাদ্রারাসার আর্ন্তজাতিক ইসলামী মহাসম্মলেন উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়

ফেব্রুয়ারী ১০, ২০১৯, ৬:৪৮ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ১১৯ বার পঠিত

তোফায়েল পাপ্পু॥ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ঐতিহ্যবাহী বরুণা মাদ্রারাসার ছালানা ইজলাছ (আর্ন্তজাতিক ইসলামী মহাসম্মলেন-২০১৯) ১৫ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার দিবারাত্রব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে।

এ উপলক্ষ্যে মহাসম্মেলনকে সফল করতে স্থানীয় প্রশাসন,সাংবাদিকসহ সকল মহলের সহযোগীতা কামনা করে রবিবার ১০ ফেব্রুয়ারি দুপুরে বরুণা মাদরাসার প্রিন্সিপাল ও ইউরোপের ইকরা বাংলা টিভির ইকরাউল কুরআন অনুষ্ঠানের এর জনপ্রিয় উপস্থাপক মাওলানা শেখ বদরুল আলম হামিদী শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।

সভায় শেখ  বদরুল আলম হামিদী বলেন,প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও দেশ বিদেশের ওলামায়ে কেরাম এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কয়েক লক্ষ দ্বীন-দরদী ধর্মপ্রাণ মসুলমানদের এই আর্ন্তজাতিক মহাসম্মেলনে আগমন ঘটবে। ওইদিনের জুম্মার বয়ান পেশ করবেন লন্ডনের ইকরা বাংলা টিভির চেয়ারম্যান বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন ইমাম কাছিম রাশীদ ও নামাজের ইমামতি করবেন ভারতের বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন আওলাদে রাসুল স্যাইয়িদ আছজাদ মাদানী। ওইদিন বরুণার পথ ও প্রান্তর ওয়াজ নসীহত, দোয়া ও জিকিরে মুখরিত হয়ে উঠবে। শেষ রাত্রের জিকির আযকার শেষে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনায় জিন্দা-মুরদা প্রবাসীসহ সকলের জন্য বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। এ দোয়া পরিচালনা করবেন বরুনার বর্তমান পীর সাহেব আল্লামা শায়খ খলীলুর রহমান হামিদী। তিনি বলেন, ‘১৯৪১ সালে দারুল উলুম দেওবন্দের অগ্রসৈনিক আল্লামা লুৎফুর রহমান বর্ণভী প্রতিষ্ঠা করেন ঐতিহ্যবাহী এই বরুণা মাদরাসা। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানে ৭০ জন শিক্ষক কর্মচারীর সক্রিয় তত্বাবধানে প্রায় ১হাজার ৫০০জন ছাত্র/ছাত্রী অত্যন্ত যতœসহকারে ধর্মীয় ও জাগতিক জ্ঞান লাভ করেছে। বিশেষ করে এই প্রতিষ্ঠানে মেধাবী দরিদ্রপরিবারের শিক্ষার্থীদের শতভাগ বিনাবেতনে থাকা খাওয়ার সুযোগ সুবিধা রয়েছে। ১৯৪৮ সালে আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কার্যক্রম শুরু করেন। এই প্রতিষ্ঠানেই ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযোদ্ধ চলাকালীন সময়ে পাকহানাদার বাহীনী কর্তৃক নির্যাতিত ও নিপীড়িত মানুষদের আশ্রয়স্থল ছিলো। যার তত্বাবধানে ছিলেন এই প্রতিষ্ঠানেরই প্রতিষ্ঠাতা শায়খ লুৎফুর রহমান বর্ণভী।

ঐতিহ্যের স্বাক্ষী দ্বীনি এই প্রতিষ্ঠান বরুনা মাদরাসার শতবছর পূর্তি উপলক্ষে শতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে বলে জানান তিনি।

শায়েখ লুৎফুর রহমান বর্ণভীর হাতে গড়া সংগঠন আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম এর কার্যক্রম সর্ম্পকে শেখ বদরুল আলম হামিদী বলেন,‘চট্টগ্রামের ওলামা মাশায়েখের সমন্বয়ে গঠিত হেফাজতে ইসলাম আর আমাদের আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম এর সাংগঠনিক কোনো সর্ম্পক নেই। তবে হেফাজতে ইসলামের যে কোনো কর্মসূচীতে আমাদের দ্বিমত নেই’। মতবিনিময়কালে অন্যদের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন মাওলানা সাইফুর রহমান, মাওলানা জাবেদ আহমদ, মাওলানা আহমদ বশীর, মিছমাহ উদ্দিন যুবায়ের ও নুর উদ্দিন ইয়াহইয়া।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”