সংবাদ সম্মেলনে কমলা কান্ত দেবনাথ ও কানু দেবনাথের অভিযোগ  জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মারামারি ॥ জমি আত্মসাতের অভিযোগ

জুলাই ৭, ২০১৮, ৫:১৩ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৮৮ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি॥ শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশিদ্রোণ ইউনিয়নের দক্ষিণ টিকরিয়া গ্রামের কমলাকান্ত দেবনাথের ছেলে কানু দেবনাথ  ৬ জুলাই শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১ ঘটিকায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২৭ জুন দুপুর সাড়ে ১২ ঘটিকার সময় কানু দেবনাথের বাড়ির পাশের একটি গর্ত সেচ করে মাছ ধরতে গেলে তারই  আত্মীয় সর্ম্পকে কাকা ও কাকাতো ভাই সুনীল দেবনাথ (৬০) সুনীল দেবনাথের ছেলে সুভাষ দেবনাথ (২৫) ও সুব্রত দেবনাথ (২৪) লাটিসোটা নিয়ে বেআইনী জনতাবদ্ধ হয়ে আমার উপর অর্তকিতে হামলা চালায়। এরপর কানু দেবনাথ ও ছায়া রানী দেবীকে শ্রীমঙ্গল হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়। চিকিৎসাজনিত কারণে বিলম্ভ হওয়ায় গত ৪ জুলাই শ্রীমঙ্গল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ গ্রহণ করে শ্রীমঙ্গল থানার এসআই জাকারিয়া একজনকে আটক করে। পরে আপসের কথা বলে তাকে ছেড়ে দেয়।

সংবাদ সম্মেলনে কানু দেবনাথ অভিযোগ করেন, সুভাষ দেব নাথ ও সুব্রত দেবনাথ দাঙ্গাবাজ, সন্ত্রাসী  প্রকৃতির লোক। এর আগেও একাধিকবার তাদের দ্বারা তারা আক্রান্ত হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে কানু দেবনাথ ও তার বাবা কমলা দেবনাথ অভিযোগ করেন, সুনীল দেবনাথ, সুভাষ দেবনাথ ও সুব্রত দেবনাথ এর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই প্রেক্ষিতে কয়েকদিন পরপরই একটার পর একটা ঘটনা ঘটিয়ে যাচ্ছে। গ্রামের মুরুব্বী ও আশিদ্রোণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রনেন্দ্র প্রসাদ বর্ধন জহর কে অবহিত করে আসছি। বয়োবৃদ্ধ কমলাকান্ত দেবনাথ অভিযোগ করেন, সুভাষ দেবনাথ ও সুব্রত দেবনাথ যেভাবে আমার ছেলে কানু দেবনাথের উপর ছড়াও হয় যে কোন সময় আমার ছেলেকে তারা প্রনে হত্যা করতে পারে। তাই বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আর্কর্ষণ করছি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান বলেন কানু ও সুনিল দেবনাথের পরিবারের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। বিচারে বসলে সঠিক বিচার কার্যে তারা সহযোগীতা করে না। তবে তারা আবারও বিচার প্রার্থী হলে তিনি তা শেষ করে দিবেন বলে জানান। এদিকে তাদের এ মারপিঠের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সুনীল দেবনাথ, সুভাষ দেবনাথ ও সুব্রত দেবনাথের পরিবার।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”