সরকারী সম্পত্তি, শশান ও কবরস্থান ও ভিপি ল্যান্ড  কৌশলে লিজ নিয়ে বিক্রি করে দিচ্ছে প্রতারক চক্র

মার্চ ১৩, ২০১৯, ১০:৩১ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৫১ বার পঠিত

বিকুল চক্রবর্তী॥ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে শশান ও ভিপি ল্যান্ডের জমি কৌশলে একসনা লিজ নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রির ব্যবসায় নিয়োজিত রয়েছে একটি চক্র। অন্যদিকে  এ জমিতে সরকারী উচ্ছেদ অভিযান শুরু হলে জমি ক্রয়করে বসবাস করা এসব সাধারণ মানুষ পড়েছেন বিপাকে। স্বপ্ন নিয়ে গড়া নীড় এখন তাদের দুঃস্বপ্ন।

অনেক কষ্ট করে দুই লক্ষ আশি হাজার টাকার বিনিময়ে লন্ডন প্রবাসী হান্নান মিয়া ও শিরিন গংদের কাছ থেকে ৪শতাংশ জমি নিয়ে বাড়ি করে বসবাস করে আসছিলেন শ্রীমঙ্গল শাহীবাগ এলাকার শাহেনা বেগম। কিন্তু শশানঘাট কমিটি তাকে উচ্ছেদ করে দেয়ায় তিনি এখন দিশেহারা। এ অবস্থা শুধু শাহেনা নয় জমি ক্রয় করে উচ্ছেদ আতংকে আছেন লতিফ মিয়া, কামাল মিয়া, আহাদ মিয়া, ইকবাল আহমদ ও পাখি বেগম সহ আরো অনেক গুলো পরিবার।

ভুরবুড়িয়া ছড়ার পাড়ে সুইনগড় এলাকায় এই শশানঘাটে শত বছর ধরে শ্রীমঙ্গলের হরিজন সম্প্রদায় ও মারোয়ারীরা বংশপরমপরায় দাহকার্য সম্পন্ন করে আসছেন। এস এ রেকর্ডএ ৪৩ শতাংশের এই ভিপি ল্যান্ড ও ডিসি খতিয়ানের জমিটি শশান শ্রেণীর অর্ন্তভুক্ত। যার ৯০ ভাগই দখলে ছিল। এরই মধ্যে ৩০ শতাংশ জমি উদ্বার করা হলেও আরো ১৩ শতাংশ জমিতে এখন বাড়িঘর বিদ্যমান।

আর শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানালেন একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে সেখানে দখল বিক্রি বা শ্রেণী পরিবর্তন করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবৈধ দখলদার অসারণসহ সরকারী সম্পত্তির অপ-ব্যবহারকারীদের লিজ বাতিল করে সার্বজনীন প্রতিষ্ঠান কিংবা প্রকৃত হত দরিদ্রদের মধ্যে লিজ প্রদানের দাবী স্থানীয়দের।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”