স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন রাজনগরের ড. কাজী খলিকুজ্জমান

মার্চ ১৩, ২০১৯, ১০:১৭ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ২৭ বার পঠিত

শংকর দুলাল দেব॥ রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন মৌলভীবাজার জেলার রাজনগরের কৃতি সন্তান প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলিকুজ্জমান আহমদ। সমাজ সেবা ও জনসেবায় অবদানের জন্য সরকার তাকে এ পদকের জন্য মনোনিত করেছে। আগামী ২৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর নিকট থেকে তিনি আনুষ্ঠানিক ভাবে এ পদক গ্রহন করবেন।

বরেণ্য অর্থনীতিবিদ, গবেষক, সমাজ ভাবনার অন্যতম ব্যাক্তি ড. কাজী খলিকুজ্জমান আহমদের খ্যাতি রয়েছে দেশ বিদেশের আনাচে কানাচে। তিনি ১৯৪৩ সালের ১২ মার্চ মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার ভূমিউড়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তার পিতা মরহুম কাজী মৌলানা মুফজ্জল হোসেন ছিলেন একজন তুখোড় রাজনীতিবিদ ও শিক্ষাবিদ। তিনি  ১৯৪৬ সালে আসাম প্রাদেশিক পরিষদের এমএলএ নির্বাচিত হন। ড. কাজী খলিকুজ্জমানের মাতা বেগম ছহিফা খাতুন ছিলেন একজন মহিয়সি নারী। তদানিন্তন সময়ে শিক্ষা বিস্তারে তিনি ব্যাপক ভূমিকা রেখে গেছেন। পিতা-মাতার মতো ড. কাজী খলিকুজ্জমানও শিক্ষা বিস্তারে যুগান্তকারী ভূমিকা রেখে চলেছেন। তিনি উপজেলার পাঁচগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়, মৌলানা মুফজ্জল হোসেন মহিলা ডিগ্রী কলেজ ও রাজনগর বিএসকে বিদ্যানিকেতন প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়াও তিনি পরিবেশ ও বিশ^ জলবায়ু নিয়ন্ত্রনে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি জাতিসঙ্গের ইন্টারগভর্নমেন্ট প্যানেল অব ক্লাইমেট চ্যাঞ্জ এর সদস্য হিসেবে ২০০৭ সালে জাতিসঙ্গের নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ে প্রসংসনীয় ভূমিকা পালন করে বিশ^ব্যাপী খ্যাতি অর্জন করেন। বাংলাদেশ তথা বিশে^র অর্থনৈতিক উন্নয়নে তিনি নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য তিনি ২০০৫ সালে মার্কেন্টাইল ব্যাংক পুরস্কার, ২০০৯ সালে একুশে পদক, ২০১২ সালে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি কর্তৃক স্বর্ণপদক, ২০১৮ সালে জীবন ও প্রকৃতি ফাউন্ডেশন সম্মাননা পদকে ভূষিত হন। পারিবারিক জীবনেও ড. কাজী খলিকুজ্জমান অত্যন্ত সুখী ও সফল। তার স্ত্রী ড. জায়েদা আহমদ ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপিকা ছিলেন। ড. জায়েদা বর্তমানে বিভিন্ন গবেষনামূলক কার্যক্রমে জড়িত রছেছেন। তাদের দুই সন্তান রয়েছে। তারা হলো- কাজী রুশদী আহমদ ও কাজী উরফী আহমদ।

ড. কাজী খলিকুজ্জমান আহমদ স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনিত হওয়ায় রাজনগরের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অভিনন্দন জানিয়েছেন। তারা হলেন- উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আছকির খান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফেরদৌসী আক্তার, রাজনগর থানার অফিসার ইন চার্জ শ্যামল বণিক, রাজনগর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ জিলাল উদ্দিন, মৌলানা মুফজ্জল হোসেন মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ইকবাল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ মিছবাহুদ্দোজা, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম বক্স সুন্দর, রাজনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি আউয়াল কালাম বেগ প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”