জুড়ীর লালছড়া গ্রামে কিশোরীকে ধর্ষণ

আগস্ট ৭, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার লালছড়া গ্রামে এক কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগে ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ফারুক মিয়া (২৫) ও কইছ উদ্দিন কয়েছ (২৭) নামে দুই ধর্ষককে আসামি করে ৬ আগষ্ট মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে জুড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা (মামলা নং-৩) দায়ের করা হয়। উভয় ধর্ষক জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের লালছড়া গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনার পর থেকে তারা পলাতক রয়েছেন। ভিকটিমের ভাই অভিযোগ করে বলেন, ৪ আগস্ট রোববার রাত ৯টার দিকে আমার বোনকে বাড়িতে একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় ওই দুই যুবক। তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্ত্তি করা হলে সেখানে তার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়। জুড়ী থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ জালাল উদ্দিন জানান, ধর্ষকদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার লালছড়া গ্রামে এক কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগে ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ফারুক মিয়া (২৫) ও কইছ উদ্দিন কয়েছ (২৭) নামে দুই ধর্ষককে আসামি করে ৬ আগষ্ট মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে জুড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা (মামলা নং-৩) দায়ের করা হয়। উভয় ধর্ষক জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের লালছড়া গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনার পর থেকে তারা পলাতক রয়েছেন। ভিকটিমের ভাই অভিযোগ করে বলেন, ৪ আগস্ট রোববার রাত ৯টার দিকে আমার বোনকে বাড়িতে একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় ওই দুই যুবক। তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্ত্তি করা হলে সেখানে তার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়। জুড়ী থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ জালাল উদ্দিন জানান, ধর্ষকদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। জুড়ী প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন