বড়লেখায় দুবাই প্রবাসীর স্ত্রী খুন শ্বশুর শ্বাশুড়ি আটক-দেবর পলাতক

আগস্ট ৭, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

বড়লেখা থানা পুলিশ গত ৭ আগষ্ট বুধবার সকালে শ্বশুর বাড়ীর গোয়াল ঘর থেকে রোমেনা বেগম (২২) নামে এক দুবাই প্রবাসীর স্ত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে। স্বামীর পক্ষের লোকজন গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে দাবী করলেও নিহতের বাবা মায়ের অভিযোগ তাদের মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যার অপবাদ দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় পুলিশ গৃহবধুর শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটক করেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কেছরিগুল গ্রামের দুবাই প্রবাসী এলাইচ মিয়ার স্ত্রী রোমেনা বেগম (২২) গতকাল বুধবার সকালে আত্মহত্যা করেছে জানিয়ে প্রবাসী দেবর মাছুম বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে। খবর পেয়ে পুলিশ গোয়ালঘর থেকে রোমেনার লাশ উদ্ধার করে। নিহত রোমেনার মা তসলিমা বেগম অভিযোগ করেন সেহরির পরও মেয়ে ফোনে আলাপ করেছে। কথাবার্তায় আত্মহত্যা করার মত কোন ইঙ্গিত মিলেনি। শ্বশুর বাড়ীর লোকজন পরিকল্পিতভাবে মেয়েকে হত্যা করেছে। এঘটনায় পুলিশ রোমেনার শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটক করেছে। দেবর দুবাই প্রবাসী মাছুম আহমদ গা ঢাকা দিয়েছে। বড়লেখার থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম নেওয়াজ এ ঘটনায় রোমেনার শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটকের সত্যতা স্বীকার করেন।
বড়লেখা থানা পুলিশ গত ৭ আগষ্ট বুধবার সকালে শ্বশুর বাড়ীর গোয়াল ঘর থেকে রোমেনা বেগম (২২) নামে এক দুবাই প্রবাসীর স্ত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে। স্বামীর পক্ষের লোকজন গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে দাবী করলেও নিহতের বাবা মায়ের অভিযোগ তাদের মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যার অপবাদ দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় পুলিশ গৃহবধুর শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটক করেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কেছরিগুল গ্রামের দুবাই প্রবাসী এলাইচ মিয়ার স্ত্রী রোমেনা বেগম (২২) গতকাল বুধবার সকালে আত্মহত্যা করেছে জানিয়ে প্রবাসী দেবর মাছুম বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে। খবর পেয়ে পুলিশ গোয়ালঘর থেকে রোমেনার লাশ উদ্ধার করে। নিহত রোমেনার মা তসলিমা বেগম অভিযোগ করেন সেহরির পরও মেয়ে ফোনে আলাপ করেছে। কথাবার্তায় আত্মহত্যা করার মত কোন ইঙ্গিত মিলেনি। শ্বশুর বাড়ীর লোকজন পরিকল্পিতভাবে মেয়েকে হত্যা করেছে। এঘটনায় পুলিশ রোমেনার শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটক করেছে। দেবর দুবাই প্রবাসী মাছুম আহমদ গা ঢাকা দিয়েছে। বড়লেখার থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম নেওয়াজ এ ঘটনায় রোমেনার শ্বশুর আকদ্দছ আলী ও শ্বাশুড়ি বারিকজান বেগমকে আটকের সত্যতা স্বীকার করেন। জুড়ী প্রতিনিধি॥

মন্তব্য করুন