শোক দিবসের অনুষ্ঠানে সুলতান মনসুরের বাড়ীতে জনতার ঢল

আগস্ট ১৫, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদের আয়োজনে তাঁর গ্রামের বাড়ীতে অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে জনতার ঢল নেমেছিল। গতকাল ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের গবিন্দপুর গ্রামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলার গণআন্দোলনের সকল শহীদানের স্মরণে এই অনুষ্ঠানে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া শেষে মধ্যাহ্ন ভোজে হাজার হাজার মানুষ অংশ গ্রহন করেন। সকাল ১১টায় মিলাদ ও দোয়া শেষে শুরু হয় মধ্যাহ্ন ভোজ বিরতিহীণভাবে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে। সুলতান মনসুরের নির্বাচনী এলাকা কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলাসহ সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতা কর্মী সমর্থকদের এই অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেখা যায়। নিজ উদ্যোগে দলবেধে অথবা শ্লোগানসহকারে নেতা কর্মীরা ছুটে আসেন শোক দিবসের এই অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানের শুরুতে সুলতান মনসুর তার বক্তৃতায় বলেন যাদের ত্যাগ ও জীবন উৎসর্গের বিনিমিয়ে আমরা আজ স্বাধীন দেশের নাগরিক, যাদের আত্মদানের বিনিময়ে আমরা আজ রাজনৈতিক কর্মী তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে আমার এই ক্ষুদ্র আয়োজন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে বলেন তাঁর আদর্শকে লালন করে ছাত্রলীগ করার মধ্য দিয়ে যে মুজিব কোট পরেছিলাম মৃত্যু অবধি সেই মুজিব কোর্ট পরে জনতার মাঝে থাকতে চাই। তার সমর্থক নেতা কর্মীর উদ্যেশ্যে বলেন ধর্য্য সহকারে দেশ ও জসগণের কল্যানে কাজ করে যান আগামীতে অবশ্যই সুদিন আসবে, সত্যের জয় হবে। মিলাদ মাহফিলে অংশ নেন কুলাউড়া উপজেলা বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, মাদ্রাসা স্কুল কলেজের শিক্ষকগন, সাবেক ও বর্তমান চেয়ারম্যানবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিবৃন্দ।
আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদের আয়োজনে তাঁর গ্রামের বাড়ীতে অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে জনতার ঢল নেমেছিল। গতকাল ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের গবিন্দপুর গ্রামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলার গণআন্দোলনের সকল শহীদানের স্মরণে এই অনুষ্ঠানে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া শেষে মধ্যাহ্ন ভোজে হাজার হাজার মানুষ অংশ গ্রহন করেন। সকাল ১১টায় মিলাদ ও দোয়া শেষে শুরু হয় মধ্যাহ্ন ভোজ বিরতিহীণভাবে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে। সুলতান মনসুরের নির্বাচনী এলাকা কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলাসহ সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতা কর্মী সমর্থকদের এই অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেখা যায়। নিজ উদ্যোগে দলবেধে অথবা শ্লোগানসহকারে নেতা কর্মীরা ছুটে আসেন শোক দিবসের এই অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানের শুরুতে সুলতান মনসুর তার বক্তৃতায় বলেন যাদের ত্যাগ ও জীবন উৎসর্গের বিনিমিয়ে আমরা আজ স্বাধীন দেশের নাগরিক, যাদের আত্মদানের বিনিময়ে আমরা আজ রাজনৈতিক কর্মী তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে আমার এই ক্ষুদ্র আয়োজন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে বলেন তাঁর আদর্শকে লালন করে ছাত্রলীগ করার মধ্য দিয়ে যে মুজিব কোট পরেছিলাম মৃত্যু অবধি সেই মুজিব কোর্ট পরে জনতার মাঝে থাকতে চাই। তার সমর্থক নেতা কর্মীর উদ্যেশ্যে বলেন ধর্য্য সহকারে দেশ ও জসগণের কল্যানে কাজ করে যান আগামীতে অবশ্যই সুদিন আসবে, সত্যের জয় হবে। মিলাদ মাহফিলে অংশ নেন কুলাউড়া উপজেলা বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, মাদ্রাসা স্কুল কলেজের শিক্ষকগন, সাবেক ও বর্তমান চেয়ারম্যানবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিবৃন্দ। রুবেল/ জুয়েল :

মন্তব্য করুন