কমলগঞ্জে বনভূমি দখল করে লেবুর চারা রোপনের অভিযোগ

জুলাই ১২, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৫ বার পঠিত

কমলগঞ্জ উপজেলায় সশস্ত্র অভিযানে বনভূমি দখল করে লেবুর চারা রোপনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে দখল ও হামলা আশঙ্কার আগেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবরে বনভূমির বর্তমান দখলদার সাবেক বনকর্মীর অসহায় বিধবা স্ত্রী একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করনে। কিন্তু এরপরও রক্ষা করতে পারেননি এ বনভূমি। শুক্রবার সকাল ৭ টায় সদর ইউনিয়নের লঙ্গুরপার গ্রামে এ দখলের ঘটনাটি ঘটে। তবে অভিযুক্ত জমসেদ আলী মোবাইলফোনে জানান এ জমির দলিল সূত্রে মালিক তিনি। বন বিভাগ অন্যায়ভাবে সে জমি দখল করে রেখেছে। সেই জমিতে বসবাসরত বিধবা তার নিজের আত্মীয়। তাকে কিছু জমি দিয়ে বাকী জমিতে তিনি লেবু গাছ রোপনের উদ্যোগ নিচ্ছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া বনরেঞ্জের অধীন লঙ্গুরপার বনভূমিতে প্রয়াত বনকর্মী কনা মিয়ার বিধবা স্ত্রী ছবুরা বেগম (৫০) দীর্ঘ ১০/১২ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। এরপর থেকে বন বিভাগের জানামতে ছবুরা বেগম দখল বনভূমিতে বসবাসের পাশাপাশি গাছগাছালি রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করেন। সম্প্রতি বালিগাঁও গ্রামের জমশেদ আলী (৩৮) দখলকৃত জমি তার নিজের দাবী করে বিধবা মহিলাকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করে বিধবা ছবুরা বেগম। কমলগঞ্জ থানার ওসির নির্দেশে ৯ জুলাই এএসআই হারুন-অর-রশীদ সরেজমিন তদন্ত করে উভয় পক্ষকে জমি সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে আজ ১৩ জুলাই শনিবার কমলগঞ্জ থানায় হাজির হতে নির্দেশ দিয়ে এসেছেন। এ নির্দেশকে তোয়াক্কা না করেই শুক্রবার সকালে জমশেদ আলী, সাইফুর মিয়া ও আরিফ মিয়ার নেতৃত্বে প্রায় ৫০ জনের সশস্ত্র দলটি লঙ্গুরপার গ্রামে অভিযান চালিয়েছে বলে বনভূমিতে বসবাসকারী বিধবা ছবুরা বেগম অভিযোগ করেন। তিনি বাঁধা দেওয়ার পরও হামলাকারীরা আধা ঘন্টার মধ্যে বনভূমিতে দখল করে লেবুর চারা রোপন করছেন। এ ব্যাপারে জমসেদ আালী বলেন, প্রয়োজেন সুষ্ঠু তদন্তক্রমে এ সমস্যার সমাধান করা হলে ভালো হবে। কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্তক্রমে বিহিত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
কমলগঞ্জ উপজেলায় সশস্ত্র অভিযানে বনভূমি দখল করে লেবুর চারা রোপনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে দখল ও হামলা আশঙ্কার আগেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবরে বনভূমির বর্তমান দখলদার সাবেক বনকর্মীর অসহায় বিধবা স্ত্রী একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করনে। কিন্তু এরপরও রক্ষা করতে পারেননি এ বনভূমি। শুক্রবার সকাল ৭ টায় সদর ইউনিয়নের লঙ্গুরপার গ্রামে এ দখলের ঘটনাটি ঘটে। তবে অভিযুক্ত জমসেদ আলী মোবাইলফোনে জানান এ জমির দলিল সূত্রে মালিক তিনি। বন বিভাগ অন্যায়ভাবে সে জমি দখল করে রেখেছে। সেই জমিতে বসবাসরত বিধবা তার নিজের আত্মীয়। তাকে কিছু জমি দিয়ে বাকী জমিতে তিনি লেবু গাছ রোপনের উদ্যোগ নিচ্ছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া বনরেঞ্জের অধীন লঙ্গুরপার বনভূমিতে প্রয়াত বনকর্মী কনা মিয়ার বিধবা স্ত্রী ছবুরা বেগম (৫০) দীর্ঘ ১০/১২ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। এরপর থেকে বন বিভাগের জানামতে ছবুরা বেগম দখল বনভূমিতে বসবাসের পাশাপাশি গাছগাছালি রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করেন। সম্প্রতি বালিগাঁও গ্রামের জমশেদ আলী (৩৮) দখলকৃত জমি তার নিজের দাবী করে বিধবা মহিলাকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করে বিধবা ছবুরা বেগম। কমলগঞ্জ থানার ওসির নির্দেশে ৯ জুলাই এএসআই হারুন-অর-রশীদ সরেজমিন তদন্ত করে উভয় পক্ষকে জমি সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে আজ ১৩ জুলাই শনিবার কমলগঞ্জ থানায় হাজির হতে নির্দেশ দিয়ে এসেছেন। এ নির্দেশকে তোয়াক্কা না করেই শুক্রবার সকালে জমশেদ আলী, সাইফুর মিয়া ও আরিফ মিয়ার নেতৃত্বে প্রায় ৫০ জনের সশস্ত্র দলটি লঙ্গুরপার গ্রামে অভিযান চালিয়েছে বলে বনভূমিতে বসবাসকারী বিধবা ছবুরা বেগম অভিযোগ করেন। তিনি বাঁধা দেওয়ার পরও হামলাকারীরা আধা ঘন্টার মধ্যে বনভূমিতে দখল করে লেবুর চারা রোপন করছেন। এ ব্যাপারে জমসেদ আালী বলেন, প্রয়োজেন সুষ্ঠু তদন্তক্রমে এ সমস্যার সমাধান করা হলে ভালো হবে। কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্তক্রমে বিহিত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন