বাংলাদেশ চা শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল সহকারি নিয়ন্ত্রকের অতিথিদেরকে সাতগাঁও চা বাগান বাংলোয় আরাম আয়েশের ব্যবস্থা না করার খেসারত

জুলাই ৩১, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৮ বার পঠিত

একেই বলে ক্ষমতার দাপট। ক্ষমতা থাকলে কিনা করা সম্ভব! এরই একটি সচিত্র প্রমাণ দিয়েছেন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল প্রভিডেন্ট পান্ডের সহকারি নিয়ন্ত্রক মুক্তার আলী। সময় মতো পি এফ চাঁদা, মালিকপক্ষের অংশ ও প্রশাসনিক চার্জ প্রদান করলেও বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয়ের ১ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার ক্ষতিপূরণ দাবী। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল প্রভিডেন্ট পান্ডের সহকারি নিয়ন্ত্রকের অতিথিদেরকে শ্রীমঙ্গল সাতগাঁও চা বাগান বাংলোয় আরাম আয়েশের ব্যবস্থা না করার কারণে ১ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার খেসারত দিতে হচ্ছে বাগান কর্তৃপক্ষকে। বাংলাদেশ চা শিল্পে কিংবদন্তী লায়লা রহমান কবীর ও উনার ছেলে চা শিল্পের বিশিষ্ট নেতা, বিসিএসের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান এবং ফাইনান্স কমিটির চেয়ারম্যান আরদাসির কবীর এর মালিানাধীন চা কোম্পানীতে যদি বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এরূপ কাল্পনিক ক্ষতিপূরণ দাবী করেন তাহলে অন্য চা কোম্পানী গুলোতে কি করছেন তাহা বোধগম্য নয় বলে দাবী করেন চা-কর’রা। জানা যায়, বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় হতে সাতগাঁও চা বাগানে ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলামকে গত ২১ জুলাই একপত্রে জানানো হয় বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল বিধিমালা ১৯৬০ এর ১৫ (২) ধারা মোতাবেক প্রতিমাসের কর্তনকৃত পি এফ চাঁদা, মালিকপক্ষের অংশ ও প্রশাসনিক চার্জের অর্থ পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করার বিধান রয়েছে। কিন্ত সাতগাঁও চা বাগান হতে নিু বর্ণিত সময়ে পি এফ অর্থ যথাসময়ে পরিশোধ করা হয়নি অর্থ্যাৎ বিলম্ভে পরিশোধ করা হয়েছে। যেমন ২০১১ সালের নভেম্বর মাসের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে ১৮ ডিসেম্বর ২০১১, জানুয়ারি ২০১২ মাসের টাকা প্রদান করা হয়েছে ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১২, নভেম্বর ২০১২ মাসের টাকা ডিসেম্বর মাসের ১৭ তারিখে প্রদান করা হয়েছে এবং ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের টাকা মার্চ মাসের ১৯ তারিখ প্রদান করা হয়েছে। এই হিসেবে মোট ৬ লক্ষ ৫২ হাজার ৩৪০ টাকা বিলম্ভে পরিশোধ করা হয়েছে। বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ২৩৯ ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর পত্র প্রাপ্তির ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে টাঃ ৬,৫২,৩৪০.০০ এর উপর ২৫% ক্ষতিপূরণ বাবদ টাঃ ১,৬৩,০৮৫.০০ পরিশোধ করার জন্য সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপককে অনুরোধ করা যাচ্ছে। সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর নিয়ন্ত্রক (উপ-সচিব) আশীষ কুমার বড়–য়া ও সহকারি নিয়ন্ত্রক মুক্তার আলীর দস্তখত করা ২১/০৭/২০১৩ তারিখের পত্র পেয়ে বিস্মিত হয়ে যান। তিনি ২৭ জুলাই একপত্রে বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রক (উপ সচিব) কে জানান উনি উনার পত্রে পি এফ চাঁদা প্রদানের যে তারিখ উল্লেখ করেছেন তা সবগুলো সঠিক নয়। কারণ সাতগাঁও চা বাগান হতে ২০১১ সালের নভেম্বর মাসের টাকা ১৫ ডিসেম্বর, ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসের টাকা ১৬ ফেব্রুয়রি ২০১২ তারিখে পরিশোধ করা হয়েছে। কারণ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে বাগান ঐচ্ছিক ছুটি থাকায় পরদিন পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১২ সালের নভেম্বর মাসের টাকা ১৩ ডিসেম্বর পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের টাকা ১৪ মার্চ পরিশোধ করা হয়েছে। পরিশোধের তারিখ বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর গ্রহণের সীল এবং দস্তখত (রিসিভ কপি) উনার নিকট আছে। এদিকে সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর এ্যাসিসটেন্ট কন্ট্রোলার মুক্তার আলী গত ১লা জুন তাহাকে টেলিফোনে মুক্তার আলীর কিছু গেষ্টকে সাতগাঁও চা বাগান এর বাংলোয় রেখে আরাম আয়েশের ব্যবস্থা করা এবং বাগান ঘুরিয়ে দেখানোর প্রস্তাব করলে তিনি (রফিকুল ইসলাম) জানান বাগান রেষ্ট হাউজে ভারতের হাই কমিশনার পরিবারসহ আছেন তাই উনার পক্ষে কিছু করা সম্ভব না। তিনি জানান ঐদিন দুপুর বেলা মুক্তার আলী পুনরায় উনাকে টেলিফোন করলে তিনি একই জবাব দেন। রফিকুল ইসলাম বলেন ঐদিন সন্ধ্যায় আবার মুক্তার আলী টেলিফোন করলে তিনি পুনরায় সে-ই একই জবাব দেন। তখন মুক্তার আলী একটু রাগান্বিত স্বরে বলেন আমরা যখন কিছু বলি তখনই আপনাদের গেষ্ট থাকে। এরই খেসারত বোধ হয় এই ক্ষতিপূরণ দাবী।
একেই বলে ক্ষমতার দাপট। ক্ষমতা থাকলে কিনা করা সম্ভব! এরই একটি সচিত্র প্রমাণ দিয়েছেন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল প্রভিডেন্ট পান্ডের সহকারি নিয়ন্ত্রক মুক্তার আলী। সময় মতো পি এফ চাঁদা, মালিকপক্ষের অংশ ও প্রশাসনিক চার্জ প্রদান করলেও বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয়ের ১ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার ক্ষতিপূরণ দাবী। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল প্রভিডেন্ট পান্ডের সহকারি নিয়ন্ত্রকের অতিথিদেরকে শ্রীমঙ্গল সাতগাঁও চা বাগান বাংলোয় আরাম আয়েশের ব্যবস্থা না করার কারণে ১ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার খেসারত দিতে হচ্ছে বাগান কর্তৃপক্ষকে। বাংলাদেশ চা শিল্পে কিংবদন্তী লায়লা রহমান কবীর ও উনার ছেলে চা শিল্পের বিশিষ্ট নেতা, বিসিএসের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান এবং ফাইনান্স কমিটির চেয়ারম্যান আরদাসির কবীর এর মালিানাধীন চা কোম্পানীতে যদি বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এরূপ কাল্পনিক ক্ষতিপূরণ দাবী করেন তাহলে অন্য চা কোম্পানী গুলোতে কি করছেন তাহা বোধগম্য নয় বলে দাবী করেন চা-কর’রা। জানা যায়, বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় হতে সাতগাঁও চা বাগানে ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলামকে গত ২১ জুলাই একপত্রে জানানো হয় বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল বিধিমালা ১৯৬০ এর ১৫ (২) ধারা মোতাবেক প্রতিমাসের কর্তনকৃত পি এফ চাঁদা, মালিকপক্ষের অংশ ও প্রশাসনিক চার্জের অর্থ পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করার বিধান রয়েছে। কিন্ত সাতগাঁও চা বাগান হতে নিু বর্ণিত সময়ে পি এফ অর্থ যথাসময়ে পরিশোধ করা হয়নি অর্থ্যাৎ বিলম্ভে পরিশোধ করা হয়েছে। যেমন ২০১১ সালের নভেম্বর মাসের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে ১৮ ডিসেম্বর ২০১১, জানুয়ারি ২০১২ মাসের টাকা প্রদান করা হয়েছে ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১২, নভেম্বর ২০১২ মাসের টাকা ডিসেম্বর মাসের ১৭ তারিখে প্রদান করা হয়েছে এবং ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের টাকা মার্চ মাসের ১৯ তারিখ প্রদান করা হয়েছে। এই হিসেবে মোট ৬ লক্ষ ৫২ হাজার ৩৪০ টাকা বিলম্ভে পরিশোধ করা হয়েছে। বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ২৩৯ ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর পত্র প্রাপ্তির ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে টাঃ ৬,৫২,৩৪০.০০ এর উপর ২৫% ক্ষতিপূরণ বাবদ টাঃ ১,৬৩,০৮৫.০০ পরিশোধ করার জন্য সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপককে অনুরোধ করা যাচ্ছে। সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর নিয়ন্ত্রক (উপ-সচিব) আশীষ কুমার বড়–য়া ও সহকারি নিয়ন্ত্রক মুক্তার আলীর দস্তখত করা ২১/০৭/২০১৩ তারিখের পত্র পেয়ে বিস্মিত হয়ে যান। তিনি ২৭ জুলাই একপত্রে বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রক (উপ সচিব) কে জানান উনি উনার পত্রে পি এফ চাঁদা প্রদানের যে তারিখ উল্লেখ করেছেন তা সবগুলো সঠিক নয়। কারণ সাতগাঁও চা বাগান হতে ২০১১ সালের নভেম্বর মাসের টাকা ১৫ ডিসেম্বর, ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসের টাকা ১৬ ফেব্রুয়রি ২০১২ তারিখে পরিশোধ করা হয়েছে। কারণ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে বাগান ঐচ্ছিক ছুটি থাকায় পরদিন পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১২ সালের নভেম্বর মাসের টাকা ১৩ ডিসেম্বর পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের টাকা ১৪ মার্চ পরিশোধ করা হয়েছে। পরিশোধের তারিখ বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর গ্রহণের সীল এবং দস্তখত (রিসিভ কপি) উনার নিকট আছে। এদিকে সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ চা বাগান শ্রমিক ভবিষ্য তহবিল কার্যালয় এর এ্যাসিসটেন্ট কন্ট্রোলার মুক্তার আলী গত ১লা জুন তাহাকে টেলিফোনে মুক্তার আলীর কিছু গেষ্টকে সাতগাঁও চা বাগান এর বাংলোয় রেখে আরাম আয়েশের ব্যবস্থা করা এবং বাগান ঘুরিয়ে দেখানোর প্রস্তাব করলে তিনি (রফিকুল ইসলাম) জানান বাগান রেষ্ট হাউজে ভারতের হাই কমিশনার পরিবারসহ আছেন তাই উনার পক্ষে কিছু করা সম্ভব না। তিনি জানান ঐদিন দুপুর বেলা মুক্তার আলী পুনরায় উনাকে টেলিফোন করলে তিনি একই জবাব দেন। রফিকুল ইসলাম বলেন ঐদিন সন্ধ্যায় আবার মুক্তার আলী টেলিফোন করলে তিনি পুনরায় সে-ই একই জবাব দেন। তখন মুক্তার আলী একটু রাগান্বিত স্বরে বলেন আমরা যখন কিছু বলি তখনই আপনাদের গেষ্ট থাকে। এরই খেসারত বোধ হয় এই ক্ষতিপূরণ দাবী। স্টাফ রিপোর্টার॥

মন্তব্য করুন