কুলাউড়ায় পল্লী তথ্য কেন্দ্র হাব ও তথ্যকল্যাণীর উদ্বোধন

জুলাই ২, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ২ বার পঠিত

সিলেট বিভাগীয় কমিশনার এন এম জিয়াউল আলম বলেছেন, বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে বর্তমান সরকার তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়ন করে সকলের দ্বার গোঁড়ায় সেবা পৌঁছে দিয়েছে। গ্রামীণ সাধারণ জনগোষ্ঠী এখন ঘরে বসে বিভিন্ন ধরনের সেবা পাচ্ছে। তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সম্ভব। বিভাগীয় কমিশনার বলেন, মানুষ তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর হলে দারিদ্রতা হ্রাস পাবে এবং ২০২১ সালে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। গত ৩০ জুন রোববার কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁওস্থ এনজিও সংস্থা ওয়াফ আয়োজিত পল্ল¬ী তথ্য কেন্দ্র হাব ও তথ্যকল্যাণী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং এনজিও ওয়াফের নির্বাহী পরিচালক আব্দুল মালিক ও ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম চৌধুরীর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, ডিনেট এর নির্বাহী পরিচালক ড. অনন্য রায়হান ও কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মতিন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টিলাগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মহি উদ্দিন হোসেন, কুলাউড়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান, ভাটেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী সিরাজ মিয়া, বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইছহাক চৌধুরী ইমরান, কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সহিদ বাবুল, পৃথিমপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ, হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী, রাউৎগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল ও ন্যাশনাল ব্যাংক কুলাউড়া শাখার এসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রিন্সিপাল মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন মজুমদার। অনুষ্ঠানে ১০ জন তথ্যকল্যাণীদের ৭৫ হাজার টাকা করে চেক এবং অন্যান্য উপকরণ প্রদান করা হয়।
সিলেট বিভাগীয় কমিশনার এন এম জিয়াউল আলম বলেছেন, বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে বর্তমান সরকার তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়ন করে সকলের দ্বার গোঁড়ায় সেবা পৌঁছে দিয়েছে। গ্রামীণ সাধারণ জনগোষ্ঠী এখন ঘরে বসে বিভিন্ন ধরনের সেবা পাচ্ছে। তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সম্ভব। বিভাগীয় কমিশনার বলেন, মানুষ তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর হলে দারিদ্রতা হ্রাস পাবে এবং ২০২১ সালে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। গত ৩০ জুন রোববার কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁওস্থ এনজিও সংস্থা ওয়াফ আয়োজিত পল্ল¬ী তথ্য কেন্দ্র হাব ও তথ্যকল্যাণী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং এনজিও ওয়াফের নির্বাহী পরিচালক আব্দুল মালিক ও ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম চৌধুরীর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, ডিনেট এর নির্বাহী পরিচালক ড. অনন্য রায়হান ও কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মতিন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টিলাগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মহি উদ্দিন হোসেন, কুলাউড়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান, ভাটেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী সিরাজ মিয়া, বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইছহাক চৌধুরী ইমরান, কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সহিদ বাবুল, পৃথিমপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ, হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী, রাউৎগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল ও ন্যাশনাল ব্যাংক কুলাউড়া শাখার এসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রিন্সিপাল মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন মজুমদার। অনুষ্ঠানে ১০ জন তথ্যকল্যাণীদের ৭৫ হাজার টাকা করে চেক এবং অন্যান্য উপকরণ প্রদান করা হয়। কুলাউড়া অফিস॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন