অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাকে অনুদান এবং অস্বচ্ছল মহিলাকে সেলাই মেশিন বিতরন

জুলাই ৬, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৭ বার পঠিত

মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ অয়োজিত দারিদ্র নিরসনের লক্ষে মৌলভীবাজারে অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের অর্থিক অনুদান এবং প্রশিক্ষিত মহিলাদের সেলাই মেশিন বিতরন করেছে জেলা পরিষদ। শনিবার দুপুরে পৌর জনমিলন কেন্দ্রে জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে এসব অনুদান প্রদান করেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানে জেলার ১০০জন অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের আর্থিক অনুদান, ৭০ জন প্রশিক্ষিত ও অস্বচ্ছল মহিলাকে সেলাই মেশিন বিতরন, ২৫৭ জন গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি সহ ২৪৫ জনকে কম্পিউটার ও সেলাই প্রশিক্ষণ শেষে সনদপত্র বিতরন করা হয়। দারিদ্র নিরসনে ৪৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে জেলা পরিষদ। এছাড়াও ২০১২-১৩ অর্থ বছরে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে জেলার বিভিন্ন রাস্থা, শিক্ষা প্রতিষ্টান ও ধর্মীয় প্রতিষ্টানের উন্নয়ন কাজ করা হয়। এবং ১৫ কোটি ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ২টি আধুনিক পর্যটক রেষ্ট হাউজ ও ২টি মাল্টিপারপাস অডিটোরিয়ামের কাজ চলছে বলে জানান জেলা পরিষদ প্রশাসক। স্বচ্চতা-জবাবদিহিতা গনতন্ত্রের মূল মন্ত্র। এরই ধারাবাহিকতায় দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষে তৃনমূল পর্যায়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করতে স্থানীয় সরকারের এইসব কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ মহসীন আলী, মৌলভীবাজার-২ আসনের নওয়াব আলী অব্বাস খাঁন, মৌলভীবাজার-১ আসনের মোঃ শাহাবুদ্দিন, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ প্রশাসক ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, মৌলবীবাজার জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এস মাহবুবুর রহমান সাবেক সংসদ সদস্য হুসনে আরা ওয়াহিদ সহ স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। বক্তারা বলেন, দেশের তৃনমূল পর্যায়ে মানবসম্পদ উন্নয়নে স্থানীয় সরকারের এ ধরনের কর্মসূচী গুরুতপুর্ণ ভুমিকা রাখেছে। দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করতে এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান বক্তারা। এ ছাড়া বিভিন্ন উপজেলা চেয়ারম্যন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন চেয়ারম্যন,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন।
মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ অয়োজিত দারিদ্র নিরসনের লক্ষে মৌলভীবাজারে অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের অর্থিক অনুদান এবং প্রশিক্ষিত মহিলাদের সেলাই মেশিন বিতরন করেছে জেলা পরিষদ। শনিবার দুপুরে পৌর জনমিলন কেন্দ্রে জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে এসব অনুদান প্রদান করেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানে জেলার ১০০জন অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের আর্থিক অনুদান, ৭০ জন প্রশিক্ষিত ও অস্বচ্ছল মহিলাকে সেলাই মেশিন বিতরন, ২৫৭ জন গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি সহ ২৪৫ জনকে কম্পিউটার ও সেলাই প্রশিক্ষণ শেষে সনদপত্র বিতরন করা হয়। দারিদ্র নিরসনে ৪৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে জেলা পরিষদ। এছাড়াও ২০১২-১৩ অর্থ বছরে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে জেলার বিভিন্ন রাস্থা, শিক্ষা প্রতিষ্টান ও ধর্মীয় প্রতিষ্টানের উন্নয়ন কাজ করা হয়। এবং ১৫ কোটি ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ২টি আধুনিক পর্যটক রেষ্ট হাউজ ও ২টি মাল্টিপারপাস অডিটোরিয়ামের কাজ চলছে বলে জানান জেলা পরিষদ প্রশাসক। স্বচ্চতা-জবাবদিহিতা গনতন্ত্রের মূল মন্ত্র। এরই ধারাবাহিকতায় দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষে তৃনমূল পর্যায়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করতে স্থানীয় সরকারের এইসব কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ মহসীন আলী, মৌলভীবাজার-২ আসনের নওয়াব আলী অব্বাস খাঁন, মৌলভীবাজার-১ আসনের মোঃ শাহাবুদ্দিন, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ প্রশাসক ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, মৌলবীবাজার জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এস মাহবুবুর রহমান সাবেক সংসদ সদস্য হুসনে আরা ওয়াহিদ সহ স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। বক্তারা বলেন, দেশের তৃনমূল পর্যায়ে মানবসম্পদ উন্নয়নে স্থানীয় সরকারের এ ধরনের কর্মসূচী গুরুতপুর্ণ ভুমিকা রাখেছে। দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করতে এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান বক্তারা। এ ছাড়া বিভিন্ন উপজেলা চেয়ারম্যন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন চেয়ারম্যন,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন। ষ্টাফ রিপোর্টার:

মন্তব্য করুন