শমশেরনগর চা বাগানে মন্দিরের তালা ভেঙ্গে দুটি শিব লিঙ্গ চুরি ॥ চা শ্রমিকের অবস্থান ধর্মঘট

জুলাই ৮, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৪ বার পঠিত

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানের শ্রীশ্রী শিব মন্দিরের তালা ভেঙ্গে দুর্বৃত্তরা পাথরের দু’টি শিব বিগ্রহ (শিব লিঙ্গ) চুরি করে নেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে কাজে যোগ না দিয়ে শমশেরনগর সহ ৪টি ফাঁড়ি চা বাগানের নারী-পুরুষ সম্মিলিতভাবে ৫ সহ¯্রাধিক চা শ্রমিক ক্ষোভ প্রকাশ করে শিব মন্দিরের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে। ৭২ ঘন্টার মধ্যে পুলিশ দুর্বৃত্তদের ধরতে না পারলে শমশেরনগরসহ আশ পাশের চা বাগানগুলোতে বড় ধরনের আন্দোলন করার কথা জানায় বিক্ষোব্দ চা বাগান শ্রমিকরা। রোববার দিবাগত রাতে শমশেরনগর চা বাগানের ঐতিহ্যবাহী শ্রীশ্রী মিব মন্দিরের তালা ভেঙ্গে পাথরের দু’টি শিব বিগ্রহ চুরি করে দুর্বৃত্তরা। মন্দিরের তালা ভেঙ্গে শিব বিগ্রহ চুরির খবর পেয়ে সোমবার সকাল সাড়ে ৭ টায় শমশেরনগর চা বাগানের শিব মন্দির প্রাঙ্গনে গিয়ে দেখা যায় নারী-পুরুষ চা শ্রমিক ছাড়াও শ্রমিক পরিবারের কয়েক হাজার লোকজন মন্দিরের সামনে অবস্থান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছে। শমশেরনগর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি রামস্বামী রাজভর ও চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু ধলই ভ্যালি (অঞ্চলের)-র সাধারন সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকা বলেন, দুর্বৃত্তরা তালা ভেঙ্গে বহু পুরাতন দু’টি শিব বিগ্রহ চুরি করে পান করেছে। এ ঘটনায় এখন শমশেরনগর ছাড়াও এ অঞ্চলের সবগুলো চা বাগানের ধর্মপ্রাণ চা শ্রমিকদের ধর্মের প্রতি আঘাত করেছে। এজন্য প্রতিবাদে শমশেরনগর চা বাগান ও তার ফাঁড়ি দেওছড়া, কানিহাটি, ডবলছড়া ও বাঘিছড়া চা বাগানের মোট ৫ সহ্রসাধিক চা শ্রমিক সোমবার কাজে যায়নি। প্রতিবাদ স্বরুপ চা শ্রমিকরা মন্দিরের সামনে অবস্থান নিয়ে ধর্মঘট পালন করছে নিজের ইচ্ছায়। অন্য দিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে পার্শ্ববর্তী আলীনগর চা বাগানের শ্রমিকরা সোমবার সকালে ২ ঘন্টার কর্ম বিরতি পালন করে। এ ঘটনার খবর পেয়ে সোমবার সকালে মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাস খান, কমলগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার লিলি, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা, কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ, শমশেরনগর চা বাগান ব্যবস্থাপক, পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস আই আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সংসদ সদস্য এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাস খান বলেন, ধারনা করা হচ্ছে প্রায় শতাধিক বছরের পুরাতন পাথরের শিব বিগ্রহটি কষ্টি পাথরের মনে করে দুর্বৃত্তরা চুরি করতে পারে। এ ব্যাপারে জোর তদন্ত চলছে। তিনি চা শ্রমিকদের শান্ত থাকতে অনুরোধ করেছেন। তিনি মনে করেন তদন্তক্রমে বিষয়টির দ্রুত সুরাহা না হলে চা শ্রমিকদের মাঝে আরও উত্তেজনা বেড়ে যাবার সম্ভাবনাও রয়েছে। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক রাম ভজন কৈরী এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, জোর তদন্তক্রমে দায়ীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, দু’টি বিষয়কে সামনে রেখে তদন্ত চলছে। তিনি আশাবাদী ২৪ ঘন্টার ভিতরে শিব বিগ্রহ চোরদের গ্রেফতার করা যাবে।
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানের শ্রীশ্রী শিব মন্দিরের তালা ভেঙ্গে দুর্বৃত্তরা পাথরের দু’টি শিব বিগ্রহ (শিব লিঙ্গ) চুরি করে নেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে কাজে যোগ না দিয়ে শমশেরনগর সহ ৪টি ফাঁড়ি চা বাগানের নারী-পুরুষ সম্মিলিতভাবে ৫ সহ¯্রাধিক চা শ্রমিক ক্ষোভ প্রকাশ করে শিব মন্দিরের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে। ৭২ ঘন্টার মধ্যে পুলিশ দুর্বৃত্তদের ধরতে না পারলে শমশেরনগরসহ আশ পাশের চা বাগানগুলোতে বড় ধরনের আন্দোলন করার কথা জানায় বিক্ষোব্দ চা বাগান শ্রমিকরা। রোববার দিবাগত রাতে শমশেরনগর চা বাগানের ঐতিহ্যবাহী শ্রীশ্রী মিব মন্দিরের তালা ভেঙ্গে পাথরের দু’টি শিব বিগ্রহ চুরি করে দুর্বৃত্তরা। মন্দিরের তালা ভেঙ্গে শিব বিগ্রহ চুরির খবর পেয়ে সোমবার সকাল সাড়ে ৭ টায় শমশেরনগর চা বাগানের শিব মন্দির প্রাঙ্গনে গিয়ে দেখা যায় নারী-পুরুষ চা শ্রমিক ছাড়াও শ্রমিক পরিবারের কয়েক হাজার লোকজন মন্দিরের সামনে অবস্থান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছে। শমশেরনগর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি রামস্বামী রাজভর ও চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু ধলই ভ্যালি (অঞ্চলের)-র সাধারন সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকা বলেন, দুর্বৃত্তরা তালা ভেঙ্গে বহু পুরাতন দু’টি শিব বিগ্রহ চুরি করে পান করেছে। এ ঘটনায় এখন শমশেরনগর ছাড়াও এ অঞ্চলের সবগুলো চা বাগানের ধর্মপ্রাণ চা শ্রমিকদের ধর্মের প্রতি আঘাত করেছে। এজন্য প্রতিবাদে শমশেরনগর চা বাগান ও তার ফাঁড়ি দেওছড়া, কানিহাটি, ডবলছড়া ও বাঘিছড়া চা বাগানের মোট ৫ সহ্রসাধিক চা শ্রমিক সোমবার কাজে যায়নি। প্রতিবাদ স্বরুপ চা শ্রমিকরা মন্দিরের সামনে অবস্থান নিয়ে ধর্মঘট পালন করছে নিজের ইচ্ছায়। অন্য দিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে পার্শ্ববর্তী আলীনগর চা বাগানের শ্রমিকরা সোমবার সকালে ২ ঘন্টার কর্ম বিরতি পালন করে। এ ঘটনার খবর পেয়ে সোমবার সকালে মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাস খান, কমলগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার লিলি, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা, কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ, শমশেরনগর চা বাগান ব্যবস্থাপক, পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস আই আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সংসদ সদস্য এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাস খান বলেন, ধারনা করা হচ্ছে প্রায় শতাধিক বছরের পুরাতন পাথরের শিব বিগ্রহটি কষ্টি পাথরের মনে করে দুর্বৃত্তরা চুরি করতে পারে। এ ব্যাপারে জোর তদন্ত চলছে। তিনি চা শ্রমিকদের শান্ত থাকতে অনুরোধ করেছেন। তিনি মনে করেন তদন্তক্রমে বিষয়টির দ্রুত সুরাহা না হলে চা শ্রমিকদের মাঝে আরও উত্তেজনা বেড়ে যাবার সম্ভাবনাও রয়েছে। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক রাম ভজন কৈরী এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, জোর তদন্তক্রমে দায়ীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, দু’টি বিষয়কে সামনে রেখে তদন্ত চলছে। তিনি আশাবাদী ২৪ ঘন্টার ভিতরে শিব বিগ্রহ চোরদের গ্রেফতার করা যাবে। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

মন্তব্য করুন