আদালতের নির্দেশনার পরও দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে না শ্রীমঙ্গলের খাদ্য পরিদর্শককে

জুলাই ১৩, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৫ বার পঠিত

কমলগঞ্জ উপজেলা থেকে বদলিকৃত খাদ্য পরিদর্শককে আদালতের নির্দেশনার পরও দায়িত্ব বুঝিয়ে দিচ্ছেন না শ্রীমঙ্গলস্থ খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিত। দায়িত্ব বুঝে না পেয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বরাবর ও উচ্চ আদালতে রীট আবেদন দায়ের করার পর আদালতের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা যোগদানকৃত খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে শ্রীমঙ্গলস্থ খাদ্য গুদামের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মৌলভীবাজার কর্তৃক মহাপরিচালকের নিকট প্রেরিত স্মারক নং ১৩.০৬.৫৮০০.০০২.১৮.০০৩.১৩.৮০৪ ৭ এপ্রিল ২০১৩খ্রি: সূত্রে জানা যায়, আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক, সিলেট এর ৩ জানুয়ারী ২০১৩ খ্রী: ৩৬ নম্বর স্মারকে আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকী খাদ্য পরিদর্শককে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, শ্রীমঙ্গল এলএসডি হিসেবে বদলি করা হয় এবং সে মোতাবেক তিনি ২২ জানুয়ারী ২০১৩ খ্রী: ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে শ্রীমঙ্গল এলএসডিতে যোগদান করলেও তাকে দায়িত্বভার বুঝিয়ে দেয়া হয়নি। দায়িত্বভার প্রাপ্তির বিষয়ে মামুন সিদ্দিকী জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তাকে আবেদন করেন। শ্রীমঙ্গল এলএসডির দায়িত্বভার বুঝে না পাওয়ায় মামুন সিদ্দিকীর হাইকোর্টে রীট পিটিশন নং ২৭৩৯/২০১৩ দায়ের করেন। উক্ত রীট পিটিশনের প্রেক্ষিতে আইনগত মতামত প্রদানের জন্য বিজ্ঞ জিপি মৌলভীবাজার নথি পর্যালোচনা করে সাত দিনের মধ্যে শ্রীমঙ্গল এলএসডির দায়িত্বভার হস্তান্তর করতে মতামত প্রদান করেন। জিপি মৌলভীবাজার এর মতামতের প্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, শ্রীমঙ্গলের উপস্থিতিতে ৩ এপ্রিল ২০১৩ খ্রি: শ্রীমঙ্গলের খাদ্য গোদামের দায়িত্বভার যোগদানকৃত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে হস্তান্তরের জন্য জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আমজাদ হোসেন লিখিতভাবে নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের নির্দেশনায় মৌলভীবাজারের জিপির মতামতের প্রেক্ষিতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের নির্দেশনার পরও শ্রীমঙ্গলের খাদ্য গোদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ার কারণ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক মো. আব্দুল মুকিত বলেন, হাইকোর্টে স্থগিতাদেশ থাকার কারণে দায়িত্বভার হস্তান্তর করা সম্ভব হয়নি। উল্লেখ্য যে, হাইকোর্টে ১৬৮২ নম্বর অন্য আরেকটি রীট আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিতের সদ্য পদোন্নতি তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক প্রদীপ কুমার দাস বলেন, তিনি নিজেও চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়েছেন। কর্তব্যরত খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিত আদালতের একটি নির্দেশনা দেখিয়ে বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখেছেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা থেকে বদলিকৃত খাদ্য পরিদর্শককে আদালতের নির্দেশনার পরও দায়িত্ব বুঝিয়ে দিচ্ছেন না শ্রীমঙ্গলস্থ খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিত। দায়িত্ব বুঝে না পেয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বরাবর ও উচ্চ আদালতে রীট আবেদন দায়ের করার পর আদালতের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা যোগদানকৃত খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে শ্রীমঙ্গলস্থ খাদ্য গুদামের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মৌলভীবাজার কর্তৃক মহাপরিচালকের নিকট প্রেরিত স্মারক নং ১৩.০৬.৫৮০০.০০২.১৮.০০৩.১৩.৮০৪ ৭ এপ্রিল ২০১৩খ্রি: সূত্রে জানা যায়, আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক, সিলেট এর ৩ জানুয়ারী ২০১৩ খ্রী: ৩৬ নম্বর স্মারকে আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকী খাদ্য পরিদর্শককে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, শ্রীমঙ্গল এলএসডি হিসেবে বদলি করা হয় এবং সে মোতাবেক তিনি ২২ জানুয়ারী ২০১৩ খ্রী: ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে শ্রীমঙ্গল এলএসডিতে যোগদান করলেও তাকে দায়িত্বভার বুঝিয়ে দেয়া হয়নি। দায়িত্বভার প্রাপ্তির বিষয়ে মামুন সিদ্দিকী জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তাকে আবেদন করেন। শ্রীমঙ্গল এলএসডির দায়িত্বভার বুঝে না পাওয়ায় মামুন সিদ্দিকীর হাইকোর্টে রীট পিটিশন নং ২৭৩৯/২০১৩ দায়ের করেন। উক্ত রীট পিটিশনের প্রেক্ষিতে আইনগত মতামত প্রদানের জন্য বিজ্ঞ জিপি মৌলভীবাজার নথি পর্যালোচনা করে সাত দিনের মধ্যে শ্রীমঙ্গল এলএসডির দায়িত্বভার হস্তান্তর করতে মতামত প্রদান করেন। জিপি মৌলভীবাজার এর মতামতের প্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, শ্রীমঙ্গলের উপস্থিতিতে ৩ এপ্রিল ২০১৩ খ্রি: শ্রীমঙ্গলের খাদ্য গোদামের দায়িত্বভার যোগদানকৃত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে হস্তান্তরের জন্য জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আমজাদ হোসেন লিখিতভাবে নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের নির্দেশনায় মৌলভীবাজারের জিপির মতামতের প্রেক্ষিতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের নির্দেশনার পরও শ্রীমঙ্গলের খাদ্য গোদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সিদ্দিকীকে দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ার কারণ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক মো. আব্দুল মুকিত বলেন, হাইকোর্টে স্থগিতাদেশ থাকার কারণে দায়িত্বভার হস্তান্তর করা সম্ভব হয়নি। উল্লেখ্য যে, হাইকোর্টে ১৬৮২ নম্বর অন্য আরেকটি রীট আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিতের সদ্য পদোন্নতি তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক প্রদীপ কুমার দাস বলেন, তিনি নিজেও চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়েছেন। কর্তব্যরত খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল মুকিত আদালতের একটি নির্দেশনা দেখিয়ে বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখেছেন। কমলগঞ্জ প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন