কুলাউড়ার ব্রাহ্মণবাজারে এলজিএসপি প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নে নুতন কমিটি গঠন

জুলাই ১৭, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

কুলাউড়া উপজেলাধীন ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন পরিষদের এক মহিলা সদস্যা পরিষদের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করে নানা মন্তব্য, বিভিন্ন দপ্তরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল এবং পরিষদের বিরুদ্ধে পত্র পত্রিকায় লেখালেখি করানোর মত বেপরোয়া আচরনে ইউপি পরিষদ ক্ষুদ্ধ হয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য এক জরুরী সভার আয়োজন করে। ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রফিক আহমদ জানান, এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামের পশ্চিম দিগাইছড়া কালর্ভাট নির্মানের জন্য ৩লক্ষ টাকার একটি প্রকল্প ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ ১,২,৩নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্যা মনোয়ারা বেগমকে প্রদান করেন। এদিকে এলজিএসপি-২ প্রকল্পের কাজ ৩০জুনের মধ্যে সমাপ্ত করার বিধান থাকায় ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগমের স্বাক্ষর চেক বইয়ে নেন, যাতে প্রকল্পের টাকা ফেরত চলে না যায়। পরবর্তীতে প্রকল্পের কাজ সম্পাদনের জন্য ঐ মহিলা সদস্যা মনোয়ারা বেগমকে কাজের ওয়ার্ড কমিটির কার্যবিবরনী,ওয়ার্ড কমিটি, সুপারভিশন কমিটি,ঠিকাদার দরপত্র ও এলজিএসপি প্রকল্পের ম্যানুয়েল অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেয়ারম্যানের কাছে জমা দিয়ে টাকা নেয়ার জন্য তাগিদ দেয়া হয়। কিন্তু মনোয়ারা বেগম এসব কমিটি বা কোন কাগজ পত্র জমা না দিয়ে চেয়ারম্যানের নিকট থেকে টাকা নেয়ার জন্য জোর চাপ প্রয়োগ করেন। কিন্তু চেয়ারম্যান ও পরিষদ এসব প্রয়োজনীয় কমিটি ও কাগজ পত্র না দেয়া পর্যন্ত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মনোয়ারা বেগম চেয়ারম্যান ও পরিষদের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করে নানা মন্তব্য, বিভিন্ন দপ্তরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল ও পরিষদের বিরুদ্ধে পত্র পত্রিকায় লেখালেখি করেন। পুনরায় চেয়ারম্যান সহ পরিষদ মনোয়ারা বেগমকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে টাকা তুলে কাজ শুরু করার অনুরোধ জানালেও মনোয়ারা বেগম এব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় গত ১০ জুলাই ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য ছয়ফুল ইসলাম, জায়েদুল হক মোস্তাকিম, আব্দুল মালিক অলেক, মাসুক আহমদ, সত্য নারায়ন নাইডু, সনৎ কুমার গোয়ালা, আব্দুল করিম, ফজলুর রহমান ফজলু, আনোয়ার হোসেন, মহিলা সদস্য সাবিত্রী কানু ও রহিমা আক্তার প্রমুখের উপস্থিতিতে এলজিএসপি প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত করার জন্য ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জাহেদুল হক মোস্তাকিমকে ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মনোনিত করে আগামী ৩১ জুলাই এর মধ্যে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করার জন্য দায়িত্ব প্রদান করা হয় এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও পরিষদের বিরুদ্ধে মনোয়ারা বেগম বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে পরিষদের সুনাম ক্ষুন্ন করায় ভবিষ্যতে মনোয়ারা বেগম এ ধরনের আচরন করলে ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
কুলাউড়া উপজেলাধীন ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন পরিষদের এক মহিলা সদস্যা পরিষদের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করে নানা মন্তব্য, বিভিন্ন দপ্তরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল এবং পরিষদের বিরুদ্ধে পত্র পত্রিকায় লেখালেখি করানোর মত বেপরোয়া আচরনে ইউপি পরিষদ ক্ষুদ্ধ হয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য এক জরুরী সভার আয়োজন করে। ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রফিক আহমদ জানান, এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামের পশ্চিম দিগাইছড়া কালর্ভাট নির্মানের জন্য ৩লক্ষ টাকার একটি প্রকল্প ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ ১,২,৩নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্যা মনোয়ারা বেগমকে প্রদান করেন। এদিকে এলজিএসপি-২ প্রকল্পের কাজ ৩০জুনের মধ্যে সমাপ্ত করার বিধান থাকায় ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগমের স্বাক্ষর চেক বইয়ে নেন, যাতে প্রকল্পের টাকা ফেরত চলে না যায়। পরবর্তীতে প্রকল্পের কাজ সম্পাদনের জন্য ঐ মহিলা সদস্যা মনোয়ারা বেগমকে কাজের ওয়ার্ড কমিটির কার্যবিবরনী,ওয়ার্ড কমিটি, সুপারভিশন কমিটি,ঠিকাদার দরপত্র ও এলজিএসপি প্রকল্পের ম্যানুয়েল অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেয়ারম্যানের কাছে জমা দিয়ে টাকা নেয়ার জন্য তাগিদ দেয়া হয়। কিন্তু মনোয়ারা বেগম এসব কমিটি বা কোন কাগজ পত্র জমা না দিয়ে চেয়ারম্যানের নিকট থেকে টাকা নেয়ার জন্য জোর চাপ প্রয়োগ করেন। কিন্তু চেয়ারম্যান ও পরিষদ এসব প্রয়োজনীয় কমিটি ও কাগজ পত্র না দেয়া পর্যন্ত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মনোয়ারা বেগম চেয়ারম্যান ও পরিষদের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করে নানা মন্তব্য, বিভিন্ন দপ্তরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল ও পরিষদের বিরুদ্ধে পত্র পত্রিকায় লেখালেখি করেন। পুনরায় চেয়ারম্যান সহ পরিষদ মনোয়ারা বেগমকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে টাকা তুলে কাজ শুরু করার অনুরোধ জানালেও মনোয়ারা বেগম এব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় গত ১০ জুলাই ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য ছয়ফুল ইসলাম, জায়েদুল হক মোস্তাকিম, আব্দুল মালিক অলেক, মাসুক আহমদ, সত্য নারায়ন নাইডু, সনৎ কুমার গোয়ালা, আব্দুল করিম, ফজলুর রহমান ফজলু, আনোয়ার হোসেন, মহিলা সদস্য সাবিত্রী কানু ও রহিমা আক্তার প্রমুখের উপস্থিতিতে এলজিএসপি প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত করার জন্য ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জাহেদুল হক মোস্তাকিমকে ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মনোনিত করে আগামী ৩১ জুলাই এর মধ্যে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করার জন্য দায়িত্ব প্রদান করা হয় এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও পরিষদের বিরুদ্ধে মনোয়ারা বেগম বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে পরিষদের সুনাম ক্ষুন্ন করায় ভবিষ্যতে মনোয়ারা বেগম এ ধরনের আচরন করলে ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কুলাউড়া অফিস॥

মন্তব্য করুন