কুশিয়ারা নদীতে লঞ্চ যোগে মানুষকে যক্ষা বিষয়ে সচেতনতা

জুলাই ২১, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

রাজনগর উপজেলায় “নোঙ্গর ফেলি ঘাটে ঘাটে”এই স্লোগান দিয়ে কুশিয়ারা নদীতে লঞ্চ যোগে সাধারণ মানুষকে যক্ষা বিষয়ে সচেতন করছেন ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম। এতে আছেন, টিম সদস্য শহিদুল ইসলাম.নবীউল আলম,আরমান ও মারুফ। কথা বলে জানা গেছে, যক্ষার উৎপত্তি ও যক্ষা থেকে বাচাঁর উপায় সম্বন্ধে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে নদী পথে তাদের আগমন। টিম প্রদান শহিদুল আলম জানান,সোসাল মার্কেটিং কোম্পানীর (এসএমসি) উদ্যোগে গত ২৯ জুন বরিশাল থেকে তারা নদী পথে রওয়ানা দিয়েছেন ঘাটে ঘাটে নোঙ্গর লাগিয়ে মানুষকে শুধু যক্ষার উপরই দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। কম্পিউটারের মাধ্যমে লঞ্চের ভিতরে নারী-পুরুষকে এর উপর নাটিকা দেখাচ্ছেন। তারা রাজনগরের হামিদপুর,সুনামপুর ও কালারবাজারে ৫শ মানুষকে সচেতন করেছেন। এর পর তারা ফেঞ্চুগঞ্জ হয়ে দেশের বৃহত্তম হাওর ও সমুদ্র কন্যা হাকলুকি হাওরের বিভিন্ন এলাকার মানুষকে সচেতন করবেন।
রাজনগর উপজেলায় “নোঙ্গর ফেলি ঘাটে ঘাটে”এই স্লোগান দিয়ে কুশিয়ারা নদীতে লঞ্চ যোগে সাধারণ মানুষকে যক্ষা বিষয়ে সচেতন করছেন ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম। এতে আছেন, টিম সদস্য শহিদুল ইসলাম.নবীউল আলম,আরমান ও মারুফ। কথা বলে জানা গেছে, যক্ষার উৎপত্তি ও যক্ষা থেকে বাচাঁর উপায় সম্বন্ধে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে নদী পথে তাদের আগমন। টিম প্রদান শহিদুল আলম জানান,সোসাল মার্কেটিং কোম্পানীর (এসএমসি) উদ্যোগে গত ২৯ জুন বরিশাল থেকে তারা নদী পথে রওয়ানা দিয়েছেন ঘাটে ঘাটে নোঙ্গর লাগিয়ে মানুষকে শুধু যক্ষার উপরই দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। কম্পিউটারের মাধ্যমে লঞ্চের ভিতরে নারী-পুরুষকে এর উপর নাটিকা দেখাচ্ছেন। তারা রাজনগরের হামিদপুর,সুনামপুর ও কালারবাজারে ৫শ মানুষকে সচেতন করেছেন। এর পর তারা ফেঞ্চুগঞ্জ হয়ে দেশের বৃহত্তম হাওর ও সমুদ্র কন্যা হাকলুকি হাওরের বিভিন্ন এলাকার মানুষকে সচেতন করবেন। স্টাফ রিপোর্টার॥

মন্তব্য করুন