শহরের চৌমুহনায় অনার্স ১ম বর্ষের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন-বিক্ষোভ

জুলাই ২১, ২০১৩, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ এই সংবাদটি ৩ বার পঠিত

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ১ম বর্ষের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের ফলাফল বাতিল, কমপক্ষে ১ বিষয়ে উর্ত্তীর্ন শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশন দাবি এবং পর্যাপ্ত অয়োজন ছাড়া সিজিপিএ ও সৃজনশীল পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধনও সমাবেশ করেছে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। ২১ জুলাই রোববার দুপুর ২টায় কলেজ গেট থেকে মিছিল শুরু করে বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়কসমূহ প্রদক্ষিন করে চৌমোহনা চত্বরে আসে। সেখানে সড়ক অবরোধ করে প্রায় আধঘন্টা বিক্ষোভ করে। এরপর সেখানে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন চলাকালে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অনার্সের শিক্ষার্থী শাহাব উদ্দিন, রণি পাল, উম্মে সালমা, তৌফিক এলাহী রায়হান আনসারী, ফরহাদ, লিটন দেব নাথ প্রমুখ । এ সময় তারা বলেন, ২০১০-২০১১ শিক্ষাবর্ষের অনার্স ১ম বর্ষের পরীক্ষার ফলাফল গত ১৬ জুলাই প্রকাশিত হলেও ৮ মাস ধরে এই শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় বর্ষের ক্লাশ করছে। এবারের ফলাফলে অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রী নন প্রমোটেট হওয়ায় তাদেরকে আবার প্রথম বর্ষে ফিরে যেতে হবে। শ্রেণিকক্ষে নতুন শিক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে পর্যাপ্ত সভা সেমিনার ছাড়া চাপিয়ে দেওয়া এ শিক্ষা পদ্ধতির রাহুগ্রাস থেকে বাচাতে সরকারের প্রতি আহবান জানান শিক্ষার্থীরা।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ১ম বর্ষের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের ফলাফল বাতিল, কমপক্ষে ১ বিষয়ে উর্ত্তীর্ন শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশন দাবি এবং পর্যাপ্ত অয়োজন ছাড়া সিজিপিএ ও সৃজনশীল পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধনও সমাবেশ করেছে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। ২১ জুলাই রোববার দুপুর ২টায় কলেজ গেট থেকে মিছিল শুরু করে বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়কসমূহ প্রদক্ষিন করে চৌমোহনা চত্বরে আসে। সেখানে সড়ক অবরোধ করে প্রায় আধঘন্টা বিক্ষোভ করে। এরপর সেখানে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন চলাকালে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অনার্সের শিক্ষার্থী শাহাব উদ্দিন, রণি পাল, উম্মে সালমা, তৌফিক এলাহী রায়হান আনসারী, ফরহাদ, লিটন দেব নাথ প্রমুখ । এ সময় তারা বলেন, ২০১০-২০১১ শিক্ষাবর্ষের অনার্স ১ম বর্ষের পরীক্ষার ফলাফল গত ১৬ জুলাই প্রকাশিত হলেও ৮ মাস ধরে এই শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় বর্ষের ক্লাশ করছে। এবারের ফলাফলে অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রী নন প্রমোটেট হওয়ায় তাদেরকে আবার প্রথম বর্ষে ফিরে যেতে হবে। শ্রেণিকক্ষে নতুন শিক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে পর্যাপ্ত সভা সেমিনার ছাড়া চাপিয়ে দেওয়া এ শিক্ষা পদ্ধতির রাহুগ্রাস থেকে বাচাতে সরকারের প্রতি আহবান জানান শিক্ষার্থীরা। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”

মন্তব্য করুন