শ্রীমঙ্গল থানার সামনে হোটেলে সন্ত্রাসী হামলা

জানুয়ারী ১৩, ২০১৯, ১২:৪২ অপরাহ্ণ এই সংবাদটি ৩৬৮ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি॥ শ্রীমঙ্গলে মৌলভীবাজার রোড়স্থ শ্রীমঙ্গল থানার পশ্চিম (বিপরীত)পাশে জিলানী সুইটমিট এন্ড রেস্টুরেন্টু  সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার ১২ জানুয়ারী রাত সাড়ে ১১ টার দিকে  শ্রীমঙ্গল থানার বিপরীত পাশের জিলানী সুইটমিট এন্ড রেস্টুরেন্ট এক দল দেশীয় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা হামলা করেছে।

স্থানীয়রা জানান, একদল যুবক মানকি ক্যাপ পরিহিত সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র হাতে নিয়ে পুরো হোটেলে সব কিছু ভাংচুর করে টাকা পয়সা লুট করে পালিয়ে যায়। এসময় হোটেলে কোন কাষ্টমার ছিল না। হোটেলে তখন ডিউটিরত বয় আর হোটেলের মালিক শ্রীমঙ্গল পৌর কাউন্সিলর মীর এম এ সালাম ছিলেন। তবে কেউ আহতের ঘটনা ঘটেনি।

জিলানী সুইটমিট এন্ড রেস্টুরেন্টু’র মালিক শ্রীমঙ্গল পৌর ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মীর এম এ সালাম জানান, রাত আনুমানিক ১১টা ৩০ মিনিটে একদল যুবক মানকি ক্যাপ পরিহিত পুরো চেহারা ঢেকে ৬ থেকে ৭ জনরে একটি অস্ত্রধারী দল।আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। আমি তখন ভিতরে বাথরুমে যাওয়ার পথে ছিলাম। ঠিক তখনী কোন কিছু না বুঝার আগেই তারা হামলা চালায়। আমি ও আমার স্টাফরা  জান বাঁচাতে ভিতরের কিচেন রুমে গিয়ে আশ্রয় নেই।সেখানেও তারা দরজাতে আঘাত করতে থাকে।

এসময় তিনি আরোও জানান,ক্যাশে তারা ঢুকে প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে পালিয়ে যায়।সব মিলে প্রায় ২ লক্ষাধীক টাকার মালামাল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কি কারনে হামলা করা হয়েছে তা এখনোও পরিষ্কারভাবে হওয়া যাচ্ছে না।

তবে অনেকেই ধারনা করছে পূর্ব কোন শত্রুতার কারনে এমনটি হতে পারে।থানার গেইটের পশ্চিম পাশে এমন ঘটনাতে অনেকেই আলোচনা করছে থানার সামনে এটা কি করে ? সম্ভব হতে পারে। যেখানে পুলিশ স্টেশন ।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম জানান,খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি।আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।দোষীদের ধরতে আমরা এতিমধ্যে মাঠে কাজ করছি। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি জড়িতদের ধরতে পারবো।

খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক হাজী মো.কামাল হোসেন সহ ব্যবসায়ী সমিতির বেশ ক’জন সদস্য ঘটনাস্থলে আসেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”